খাদ্যের প্রলোভন দেখিয়ে নরসিংদী রেলস্টেশন থেকে ভাড়াটে বাসায় নিয়ে বোবা কিশোরীকে গণধর্ষণ!

মো. হৃদয় খান, স্টাফ রিপোর্টার: খাদ্যের প্রলোভন দেখিয়ে নরসিংদী রেলস্টেশন থেকে ভাড়াটে বাসায় নিয়ে অজ্ঞাতনামা এক বোবা কিশোরীকে গণধর্ষণ করেছে ৪ যুবক। বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ তাকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। গত মঙ্গলবার রাতে নরসিংদী শহর সংলগ্ন টাওয়াদী গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। বোবা কিশোরীর পিতা-মাতা, নাম ঠিকানা কিছুই জানা সম্ভব হয়নি। সে কথা বলতে না পারায় তার নিকট থেকে কোন তথ্য উদ্ধার করাও সম্ভব হয়নি।16997177_7

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এই কিশোরী মঙ্গলবার রাতে নরসিংদী রেলস্টেশন এলাকায় খাদ্যের সন্ধানে ঘুরা ফেরা করছিলো। এ সময় মুরাদ (১৭), সুমন (২৬), উজ্জল (১৭) ও সামসুল (২২) নামে ৪ অটোচালক তাকে খাবারের লোভ দেখিয়ে নরসিংদী শহর সংলগ্ন টাওয়াদী গ্রামের আমিনা বেগমের বাড়ীতে নিয়ে যায়। সেখানে একটি ভাড়াটে ঘরে রেখে বোবা কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করতে থাকে। প্রথমে মুরাদ ও সুমন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। উজ্জল ও সামসুল তার হাত ও মুখ চেপে ধরে রাখে। এরপর বোবা কিশোরীটি চিৎকার করলে ধর্ষকরা অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে। এক পর্যায়ে তারা কিশোরীটিকে হত্যা করার জন্য চেপে ধরলে কিশোরীটি অবস্থা টের পেয়ে শরীরের সমস্ত শক্তি দিয়ে হুড়াহুড়ি ও চিৎকার করে। এসময় আশেপাশের লোকজনের ঘুম ভেঙ্গে গেলে তারা ঘটনাস্থলে দৌড়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে এবং চার ধর্ষককে আটক করে টহল পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। পুলিশ ধর্ষিতা বোবা কিশোরীকে আকার ইঙ্গিতে অনেক কিছু জিজ্ঞাসা করে। কিন্তু বোবা কিশোরী পুলিশের এই ইঙ্গিত কিছুই বুঝতে না পারায় সে পুলিশকে কিছু জানাতে পারেনি। সে শুধু ইঙ্গিতে বুঝিয়েছে তাকে ৪ জন ধর্ষণ করেছে। এ অবস্থায় নরসিংদী শহর থেকে এক বোবা শিকক্ষকে নিয়ে তার সাথে কথা বলায়। এতে পুলিশ তার ধর্ষণের খবর বুঝতে পারে। পরে পুলিশ ৪ ধর্ষককে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা পুলিশের নিকট ধর্ষণের কথা স্বীকার করে।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বাদী হয়ে ধর্ষক মুরাদ, সুমন, উজ্জল ও সামসুলের বিরুদ্ধে নরসিংদী সদর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। ধর্ষকদের মধ্যে মুরাদ নরসিংদী সদর উপজেলার টাওয়াদী গ্রামের দুলাল মিয়ার পুত্র, সুমন একই এলাকার নুরু মিয়ার বাড়ীর ভাড়াটিয়া সুরুজ আলীর পুত্র। তার গ্রামের বাড়ী ময়মনসিংহের গৌরিপুরে। উজ্জল একই এলাকার আজিজ বোডিং সংলগ্ন এলাকার ফজলুল হকের পুত্র। তার গ্রামের বাড়ী ময়মনসিংহের নেত্রকোনায়। সামসুল সোনাতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন মজিবুর রহমানের পুত্র।