ফুলবাড়ীতে পাশবিক নির্যাতনে যুবককে হত্যা, গ্রেফতার-১

d


অনীল চন্দ্র রায়,ফুলবাড়ী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে পৈচাশিক ভাবে নির্যাতন চালিয়ে মদ্য সেবন করে হত্যা করা হয়েছে এক যুবককে। পুলিশ এক ঘাতককে গ্রেফতার করলেও মূল পরিকল্পনাকারী দুই ঘাতককে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ দিকে একমাত্র সন্তান হত্যা হওয়ায় মা ও স্বজনের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে বাতাস। এলাকার লোকজন মূল ঘাতককে ধরিয়ে দেয়ার প্রতিজ্ঞা করেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে সরেজমিনে উপজেলার পুর্ব ফুলমতি ও গোরকমন্ডল গ্রামে গিয়ে এ লোম হর্ষক ঘটনা জানা গেছে।

সরে জমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার পূর্ব ফুলমতি গ্রামের এরশাদ আলী গেতু মামুদের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩৮)কে গোরকমন্ডল এলাকার মাদক ব্যবসায়ী আবুল হোসেনের ছেলে নুর হোসেন (৩১),মৃত আফছার আলীর ছেলে আজিজুল ইসলাম (৩৯)সহ অজ্ঞাত নামা আরও একজন বুধবার রাত ৮ টার দিকে গোরকমন্ডল এলাকা হিন্দু সম্প্রদায়ের অষ্টপ্রহর অনুষ্ঠান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধরলার চরাঞ্চলের ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে দেশীয় অস্ত্র ব্যবহার করে সেচ পাম্প চুরির স্বীকার উক্তি আদায়ের চেষ্টা চালায়। এ সময় শহিদুলে দুই পায়ের হাটুর নিচে ধাঁরালো অস্ত্র দিয়ে নির্মম ভাবে কোপানো হয়। তার আর্ত্ব চিৎকারে ঘাতক নুর হোসেনকে শহিদুল ধর্ম পিতা ডাক দিয়ে তাকে আর নির্যাতন না করার আকুতি জানালেও ঘাতক নুর হোসেন গং আরও ক্ষিপ্ত হয়ে লোহার কাটিং প্লাস দিয়ে ডান পায়ে বৃদ্ধাঙ্গুলি নির্মম ভাবে আঘাত করে থেতলে দেয়। যাহা মধ্য যুগিও বর্বরতার শামিল। ঘাতকেরা শহিদুলের মৃত্যু হয়েছে মনে করে ভুট্টা ক্ষেতের পাশের একটি বাড়ীর উঠানে ফেলে দিয়ে চলে যায়। গত বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় জর্জি মিয়ার খরের ডিবিতে স্থানীয় লোকজন তার গেংরানীর শব্দ শুনতে পেয়ে তাৎক্ষনিক ভাবে তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য সকাল সাড়ে ১০টায় দিকে ভর্তি করে। শহিদুলে অবস্থার অবনতি ঘটলে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টায় দিকে তার হাসপাতালে মৃত্যু হয়।

হত্যার শিকার শহিদুলের বৃদ্ধা মা সুফিয়া জানান, আমার ছেলেকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে তারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে। এ কথা বলেই তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। সন্তান সুমন (১৩)  হাউমাউ করে কেঁেদ জানায়, তার বাবাকে ভুট্টা ক্ষেতে নির্মম ভাবে নির্যাতন চালিয়ে হত্যার চেষ্ঠা চালায় তারা। কিন্তু তিনিতো বাচঁলেন না। আমি এই পাষন্ড ঘাতকদের ফাঁসি চাই।

স্থানীয় এনামুল (৪১),আতাউর (৩১),আনোয়ার (৪৩),বাবুল (৪৬) জানান, এ হত্যা কান্ডটি পরিকল্পিত। যারা তাকে চোর বানানোর কথা বলে নির্যাতন করে হত্যা করেছেন তারাতো চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী। কাউরে উপর অপবাদ দিয়ে হত্যা করতে পারে না। আমরা এর দৃষ্ট্রান্ত শাস্তি দাবি জানাচ্ছি।
এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ এখতেখারুল ইসলাম জানান, শহিদুলের গায়ে আঘাতের চিঞ্ছ রয়েছে।
এ প্রসঙ্গে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম রেজাউল ইসলাম জানান, হত্যাকান্ডটি পরিকল্পিত। তবে এভাবে কেউ কাউকে নির্যাতন করে হত্যা করতে পারে না। থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে এবং একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।