মাত্র ৯০ ডলারের চুক্তিতে খুন হয়েছেন কিম!

news_picture_43298_kim02


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

মাত্র ৯০ ডলারের চুক্তিতে উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং-উনের সৎভাই কিম জং-ন্যামকে হত্যা করে গ্রেপ্তার হওয়া ইন্দোনেশীয় নারী।

শনিবার ইন্দোনেশিয়ার দূতাবাসের কর্মকর্তারা কুয়ালালামপুরে সিতি আইসিয়াহ নামের ওই নারীর সঙ্গে দেখা করেন। এ সময় তিনি ৯০ ডলার নেওয়ার কথা স্বীকার করেন।

কর্মকর্তাদের সিতি বলেন, কোনো এক ব্যক্তি তাকে কাজটি করতে বলেন। তাকে বলা হয়, এ জন্য তাকে ৪০০ মালয়েশীয় রিংগিত (৯০ ডলার) দেওয়া হবে। তাকে বেবি ওয়েলের মতো এ ধরনের মলম দেওয়া হয়।

সিতি জানিয়েছেন, ৯০ ডলারের চুক্তি অনুযায়ী, তার কাজ ছিল ভাড়ের মতো আচরণ করে কিম জং-ন্যামের মুখে ‘বেবি ওয়েল’-এর মতো মলম ঘসে দেওয়া।

ন্যামের মরদেহের পরীক্ষায় পাওয়ায় গেছে, উচ্চমাত্রার বিষাক্ত ভিএক্স প্রয়োগ করা হয়েছে তার শরীরে। মানবদেহে ভিএক্স প্রবেশ করালে শিরা-উপশিরা অকেজো হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে মানুষ।

ভিএক্স বিষ যুক্তরাষ্ট্রে ‘গণহত্যার অস্ত্র’ হিসেবে স্বীকৃত। উচ্চমাত্রার এই বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে ন্যামের।

গত সপ্তাহে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে ফ্লাইটের জন্য অপেক্ষা করার সময় খুন হন ন্যাম। দুজন নারীকে তার মুখে কিছু ছিটিয়ে দিতে যায়।

ধারণা করা হচ্ছে, এই হত্যার পেছনে উত্তর কোরিয় সরকারের হাত রয়েছে। সৎভাই ন্যামের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক ছিল না কিম জং-উনের। তবে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে উত্তরের প্রশাসন।

এই হত্যায় জড়িত সন্দেহে ভিয়েতনামের পাসপোর্টধারী এক নারী ও উত্তর কোরিয়ার এক পুরুষকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরো সাত সন্দেহভাজন ওয়ান্টেড তালিকায় রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন, মালয়েশিয়ায় উত্তর কোরিয়া দূতাবাসের এক কূটনীতিক।-বিবিসি