জামালপুরের বকশীগঞ্জে পাহাড় কেটে মাটি বিক্রি

আবদুল লতিফ লায়ন, জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার সীমান্ত অঞ্চল বালিঝুরি বাজার এলাকায় শুরু হয়েছে পাহাড় কাটার মহোৎসব।

mati-kata

পাহাড় কেটে মাটি বিক্রি করছে হাজী আলতাফ হোসেনের নের্তৃত্বে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। ওরা পাহাড় কাটছে ফ্রি স্টাইলে। তাদের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায়না স্থানীয়দের কেউ। দিনে দুপুরে পাহাড় ধংস্বের ঘটনা ঘটলেও বনবিভাগ ও স্থানীয় প্রশাসন নিশ্চুপ।

সরজমিনে দেখা যায়, বালিঝুড়ি বাজার সংলগ্ন একটি উচু টিলা থেকে মাটি কাটছে হাজী আলতাফ হোসেনের লোকজন। পরে তা ট্রাকে করে নির্মানাধীন সেতুর সংযোগ সড়কে ফেলা হচ্ছে। ট্রাক প্রতি ৫শ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে জানান মোক্তার, আমিনুল, হুমায়ুন ও সাইফুলসহ স্থানীয়রা।

এ ব্যাপারে হাজী আলতাফ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, আমি আমার রেকর্ডকৃত দখলীয় জমি থেকে মাটি কেটেছি এতে কারো কোন সমস্যা হওয়া কথা নয়।

বালিঝুড়ি রেঞ্জের বন বিভাগের বিট কর্মকর্তা রুহুল আমিন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, মাটি কাটার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে মাটি কাটা বন্ধ করা হয়েছে এবং সরকারী সম্পত্তি নষ্ট করার দায়ে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই মাটি কাটা নিয়ে একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে সহকারী ভুমি কমিশনার মোঃ সাদেকুর রহমান বলেন, পাহাড় প্রাকৃতিক সম্পদ এর মালিক সরকার। ব্যাক্তি মালিকানা হলেও পাহাড় ধংস্বেও এখতিয়ার কেউর নেই। ঘটনাটি আমার জানা ছিলনা। সরজমিনে গিয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে জামালপুর জেলা প্রশাসক মোঃ শাহাবুদ্দিন খান বলেন, পাহাড় কাটা পুরোপুরি বেআইনি। এসিল্যান্ডকে পাঠিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান তিনি।

পাহাড় কাটার ফলে চলতি বর্ষা মৌসুমে পাহাড় ধ্বসে সংলগ্ন বালিঝুরি বাজারসহ বাড়ি ঘরে বসবাসরত লোকজনের প্রানহানি ঘটার আশংকা রয়েছে। পরিবেশের ভারসাম্য পড়বে হুমকির মুখে।