‘রাস্তায় কোনো রকম গাড়ি চলবে না, চালাতে দেব না’

সময়ের কণ্ঠস্বর- পূর্বঘোষণা ছাড়াই মঙ্গলবার রাজধানীসহ সারা দেশে ধর্মঘট শুরু করেছেন পরিবহন শ্রমিকরা। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। এমন ভোগান্তির মাঝেই পরিবহন শ্রমিকরা তাদের ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে গাবতলীতে এক সমাবেশে বাংলাদেশ আন্তজেলা ট্রাক চালক ইউনিয়নের সভাপতি তাজুল ইসলাম নিজেদের এ অবস্থানের কথা জানান।

ছবি- সংগৃহীত
ছবি- সংগৃহীত

তিনি বলেন, ‘সংবাদপত্র, অ্যাম্বুলেন্সের মতো জরুরি গাড়ি ছাড়া কোনো রকম গাড়ি চলবে না, চালাতে দেব না। আমাদের নেতা শাজাহান খান কেবিনেট মন্ত্রী। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বললে দুই মিনিটের ব্যাপার। এ আইন প্রত্যাহার করে শ্রমিকদের জেল থেকে বের করব। আমাদের দাবিদাওয়া সম্পূর্ণ মেনে নিলে শ্রমিকেরা গাড়ি চালাবেন।’

সমাবেশে বাংলাদেশ আন্তজেলা ট্রাক চালক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রুস্তম আলী বলেন, ‘যাবজ্জীবন আর ফাঁসির দায় মাথায় নিয়ে আমরা গাড়ি চালাতে পারব না। যতক্ষণ না আইন বাতিল ও দণ্ডিত চালকদের মুক্তি না দেওয়া হবে, ততক্ষণ এ আন্দোলন চলবে।’

মানিকগঞ্জের আদালতে চলচিত্রকার তারেক মাসুদ ও সংবাদিক মিশুক মুনীর নিহত মামলায় একজন বাসচালকের যাবজ্জীবন কারাদন্ডের প্রতিবাদে বাস ধর্মঘট পালন করছিলেন কয়েকটি অঞ্চলের শ্রমিকরা। সরকারি পর্যায়ে বৈঠকের পর সেই ধর্মঘট প্রত্যাহার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল সোমবার।

এরই মধ্যে সাভারের একটি সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নারী নিহত হওয়ার মামলায় সোমবার ঢাকার জজ আদালত মীর হোসেন নামের একজন চালকের মৃত্যুদন্ডের রায় দেন। এ নিয়ে সোমবার রাতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি ঘোষণা দেয়।