ফরিদপুরে অটোবাইকের কারণে বাড়ছে যানজট : ঘটছে অহরহ দুর্ঘটনা

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরে পৌর শহরের সড়কগুলোতে অবাধে চলছে অবৈধ অটো বাইক, ইজিবাইক ও অটোরিক্সা।

riksa

সড়কের পাশে কোথাও আবার গড়ে উঠেছে অবৈধ স্ট্যান্ড। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য শহরের জনতা ব্যাংকের মোড়, থানার মোড়, টেপাখোলা, নতুন বাসস্ট্যান্ড, রাজবাড়ী রাস্তার মোড়সহ একাধিক স্থান। ব্যস্ততম এ সড়কে যত্রতত্র এ সকল যান নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে যাত্রী ওঠা নামা করায় অহরহরই ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

তাছাড়া যেখানে সেখানে পার্কিং করায় সৃষ্টি হচ্ছে যানজটের। তবুও মানুষ একান্ত বাধ্য হয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে। সরেজমিনে গতকাল জনতা ব্যাংকের মোড়সহ সড়কের বিভিন্ন স্থানে এসব ছোট যানে যাত্রী ওঠা নামা করতে দেখা গেছে। বিগত দিনে ঘটা কয়েকটি মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনার প্রধান কারণ এই কথিত স্ট্যান্ডগুলো।

এছাড়া শহরের চার রাস্তার মোড় সর্বোপরি সরকারি তিতুমীর মার্কেট সংলগ্ন হওয়ায় নগরীর চৌমাথা অন্যতম ব্যস্ত এলাকা হিসেবে পরিচিত। এ জন্য ব্যস্ততম সড়কে যত্রতত্র পার্কিং করে এসব যানগুলো নিয়মিত যাত্রী পরিবহন করে থাকে। এগুলোর ভিড়ে যাত্রীদের পাশাপাশি স্থানীয়রাও রয়েছেন ঝুঁকির মধ্যে। সকালে অভিভাবকরা তাদের সন্তানকে স্কুলে নিয়ে যেতে চার রাস্তার মোড়টি আঁড়াআড়ি পেরোতে হয়। মাহিন্দ্রা, অটো এবং ইজিবাইকের ভিড়ে সৃষ্ট যানজটের কারণে যেমন ভোগান্তি পোহাতে হয়। তেমনি এ সকল যান এবং সড়কটিতে দ্রুতগামী বাসের বেপরোয়া চলাচল প্রতি মুহূর্তে আংশকা জাগায় দুর্ঘটনার।

ফরিদপুর ছোট শহর। কিন্তু এ ছোট শহরে প্রায় কয়েক লক্ষ মানুষের বসবাস। দিন দিন এ শহরে লোক সংখ্যাও বাড়ছে। বাড়ছে যানবাহন। আর এর সাথে পাল্লা দিয়ে ছুটছে অটো বাইক ও অটোরিক্সা। বর্তমানে অটোরিক্সার দাপটে রিক্সা হারিয়ে যেতে বসেছে।

জেলা শহরের একাধিক লোকের সাথে কথা বলে জানা যায়, যত্রতত্র অটো বাইক ও অটো রিক্সার যাতায়াত সৃষ্টি করেছে মহা যানজট। যানজটের কবলে পড়ে ঘন্টার পর ঘন্টা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন জনগণ। এ শহরে প্রায় কয়েক হাজার পায়ে চালিত রিক্সা চলাচল করে। অন্যদিকে আছে পিকআপ, মাইক্রো, ট্রাক, ট্যাংকলড়ি, ভটভটি ও ট্রাক্টর। এর সাথে নতুন যোগ হয়েছে ব্যাটারী বা মোটর চালিত রিক্সা-ভ্যান ও বাই সাইকেলও।

ফরিদপুর পৌরসভার লাইসেন্স শাখা থেকে জানা যায়, প্রায় দুই বছর যাবত এসব রিক্সা-ভ্যান ও অটোর লাইসেন্স অনেকটা বন্ধ রয়েছে। তবে কেন এসব লাইসেন্স বন্ধ রয়েছে ? এ ব্যাপারে কেউ সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি হয়নি। তবে তারা জানান, আশপাশের গ্রাম ও শহর থেকে প্রতিদিন কয়েক হাজার রিক্সা-ভ্যান ও অটো প্রবেশ করছে শহরে। ফলে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।

স্থানীয়রা জানায়, যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ছোট শহর ফরিদপুরে প্রতিদিন সৃষ্টি হয় যানজট। এ যানজট নিরসনে মোটর মালিক শ্রমিক, ফরিদপুর পৌরসভা এবং দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই হয়তো যানজট নিরসন সম্ভব।

শহরে চলাচলকারী যানবাহনগুলোর লাইসেন্স সম্পর্কে কথা হয়, ফরিদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মির্জা জাকির হোসেনের সাথে। তিনি জানান, পৌরসভা কর্তৃক যানজট নিরসনে বেশ কয়েকবার রাস্তা থেকে অবৈধ গড়ে ওঠা দোকান উচ্ছেদ করা হয়। উচ্ছেদের পূর্বে সময় দিয়ে শহরে মাইকে প্রচার করাও হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন গ্রাম-অঞ্চল থেকে অটো বাইক এসে এ যানজট সৃষ্টি করছে। এতে যাত্রীদের অনেকটা দুর্ভোগও পোহাতে হচ্ছে।