১ লাখ ২০ হাজারে বিক্রি হলো সেই পোয়া মাছ!

news_picture_43566_fish


চিত্র বিচিত্র ডেস্কঃ

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় শাহপরীর দ্বীপ এলাকায় গভীর সমুদ্রে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে ১২৫ কেজি ওজনের একটি পোয়া মাছ, যা বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার টাকায়। মাছটি কিনে নিয়েছেন টেকনাফের মাছ বিক্রেতা রিয়াজ উদ্দিনসহ কয়েকজন।

জেলেরা জানান, টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের উত্তরপাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ হাসানের মালিকানাধীন একটি নৌকায় জেলে খুরশিদ আলম, রশিদ আহমদ ও নজির আহমদ মাছ ধরতে যান। নাফ নদীর মোহনা–সংলগ্ন নাইক্ষ্যংদিয়া এলাকায় মঙ্গলবার ভোরে জাল পাতেন। সকালে জালে পোয়া মাছটি ধরা পড়ে; এটির ওজন ১২৫ কেজি।

জেলেরা জানান, মাছটি নিয়ে শাহপরীর দ্বীপের জেটিঘাটে ফিরে আসার পর উৎসুক মানুষের ভিড় জমে যায়।

নৌকার মালিক মোহাম্মদ হাসান জানান, তিনি প্রথমে মাছটির দাম হাঁকেন দেড় লাখ টাকা। পরে টেকনাফের মাছ ব্যবসায়ী রিয়াজ উদ্দিনসহ কয়েকজন মিলে ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় মাছটি কিনে নেন। মাছটি হিমাগারে রাখা হয়েছে।

ব্যবসায়ী রিয়াজ উদ্দিন বলেন, মাছটি আমরা মেপে দেখেছি। এর ওজন ১২৫ কেজির একটু বেশি। এত বড় পোয়া মাছ জীবনে দেখি নাই। বেশি ওজনের পোয়া মাছ সচরাচর সুস্বাদু হয়।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার টেকনাফের বড় মাছ বাজারে মাছটি কেটে বিক্রি করা হবে। প্রতি কেজি ১ হাজার ২০০ টাকা করে বিক্রির জন্য বুধবার বিকেল থেকে পৌর এলাকায় মাইকিং করা হবে। এরই মধ্যে প্রায় দুই মনের মত মাছ আগাম বিক্রি হয়ে গেছে।

শাহ পরীর দ্বীপের বাসিন্দা ৭৫ বছরের আব্দুল মাবুদ বলেন, সেই ছোটকাল থেকে সাগরে মাছ ধরা দেখে আসছি। জীবনে এত বড় পোয়া মাছ চোখে পড়ে নাই। অন্য কোথাও এত বড় মাছ ধরা পড়েছে বলেও খবর শুনি নাই।

শাহপরীর দ্বীপের স্থানীয় ব্যবসায়ী জসিম মাহমুদ ও টেকনাফের নতুন পল্লানপাড়ার মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, এ রকম বড় মাছ গত ২০-২৫ বছরেও তারা দেখেননি। পোয়া মাছ খেতে খুবই সুস্বাদু। তাই দুই কেজি করে মাছের জন্য তারা আগাম টাকা দিয়েছেন।

টেকনাফ উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা সুজাত কুমার চৌধুরী বলেন, এ মাছ গভীর সাগরে পাওয়া যায়। নাফ নদীর মোহনায় সাধারণত পাওয়ার কথা নয়। মাছটি পথ হারিয়ে নাফ নদীর মোহনায় চলে আসায় জালে ধরা পড়েছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।