মোটর শ্রমিকদের নৈরাজ্যে অচল রাজশাহী

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনার মামলায় দুই চালকের সাজার প্রতিবাদে মোটর শ্রমিকদের অবরোধ।

oborodh

গতকাল মঙ্গলবার থেকে রাজশাহী মোটর শ্রমিক জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে হালকা যানবাহন চলাচলে বাঁধা ও ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। এ সময় সিএনজি ও অটোরিকশা চালকদের সঙ্গে মোটর শ্রমিকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে জানান বোয়ালিয়া থানার ওসি শাহাদত হোসেন খান।

অপর দিকে চালকের সাজার প্রতিবাদে দেশব্যাপী পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারন মানুষ। যার কারনে উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশের সব জেলায় যাত্রী ও পণ্যবাহী যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

মানিকগঞ্জে তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহতের ঘটনায় জামির হোসেন নামের এক বাস চালকের যাবজ্জীবন সাজা হওয়ায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় দুই দিন পরিবহন ধর্মঘট চলার পর সোমবার প্রশাসনের আশ্বাসে কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা এলেও পরে শ্রমিক নেতারা কর্মসূচি বহাল রাখার কথা বলেন।

এর মধ্যে ঢাকার সাভারে ট্রাকচাপা দিয়ে এক নারীকে হত্যার দায়ে সোমবার ঢাকার আদালতে ট্রাকচালক মীর হোসেনের ফাঁসির রায় হলে রাতে পরিবহন শ্রমিক নেতারা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি দেন।

এদিকে রাজশাহী নগরের বোয়ালিয়া থানার ওসি শাহাদত হোসেন জানান, আজ সকাল ১১টার দিকে রাজশাহী নগরের শিরোইল বাস টার্মিনালের থেকে ধর্মঘটের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করে রেলগেট বঙ্গবন্ধু চত্বর অতিক্রমের সময় শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে সিএনজি ও অটোরিকশার উপর হামলা চালিয়ে ভাংচুর করার চেষ্টা করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আজ বুধবার সকল থেকে রাজশাহী নগরের ছয়টি পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখে শিরোইল বাস স্ট্যন্ড, রেলগেট বঙ্গবন্ধু চত্বর, নওদাপাড় আমচত্বর মোড়, কাশিয়াডাঙ্গা মোড়, ভদ্রা মোড় ও তালাইমারি। শ্রমিকরা এসব স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ ছাড়াও গাছের গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিটি পয়েন্টে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।