এই যাত্রায় মাফ করলাম: সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে গয়েশ্বর

সময়ের কণ্ঠস্বর – গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে দলের ‘অবস্থা প্রতিবাদ কর্মসূচি’ ঘরোয়াভাবে পালন করার বিষয়ে বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, এই যাত্রায় সরকারকে মাফ করলাম। ভবিষ্যতে রাজপথে নামবো তবে সেটা কেউ ঠেকাতে পারবে না।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউশনে বেলা ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টা এই কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। এদের দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ শীর্ষস্থানীয় নেতারা বক্তব্য দেন।

গত বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা গ্যাসের বাড়তি দাম এরই মধ্যে কার্যকর হয়েছে। ১ মার্চ থেকে আবাসিকে দুই চুলার বিল হয়েছে ৮০০ টাকা। সিএনজির দাম প্রতি ঘনমিটার ৩৫ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৮ টাকা। এরইভাবে বেড়েছে বাণিজ্যিক অন্যান্য সংযোগের বিল।

গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার রাজধানীতে আধাবেলা হরতাল করে বামপন্থী দল সিপিবি-বাসদ। বিএনপি এই কর্মসূচিতে সমর্থন জানালেও অংশ নেয়নি। একই দিন তারা আজকের এই কর্মসূচি ঘোষণা করে।

goyessor

রাজধানীতে গত কয়েক মাসে বিএনপির ঘোষিত দুটি জনসভা হয়নি পুলিশ অনুমতি না দেয়ায়। প্রথমবার ৭ নভেম্বর এবং দ্বিতীয় জনসভাটি করার কথা ছিল ৭ জানুয়ারি। এরপর থেকেই নানা সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলে আসছেন, রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনে আর তারা অনুমতির ধার ধারবেন না।

গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে যোগ দিয়ে গয়েশ্বর বলেন, ‘এইবারের মতো ক্ষমা করলাম। এরপর আর অনুমতি নিয়ে রুমের মধ্যে নয়, রাস্তায় নেমে নামবো।’

একই কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মীর মো. নাসির উদ্দিন গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে ‘নমনীয়’ কর্মসূচি দেয়ার সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, বামপন্থী দলগুলো হরতাল করতে পারলে বিএনপি কেন সেটা পারবে না।

এরপর গয়েশ্বর বলেন, ‘আমরা অনেকদিন যাবত ঘরে বসে কথা বলছি। আমরা ইচ্ছা করলে রাজপথে নেমে মিছিল করতে পারি। আমরা প্রস্তুত। আমরা সরকারকে হুঁশিয়ার করে বলে দিতে চাই, এই যাত্রায় মাফ করলাম। আগামী দিনে আর ঘরে নয়, অনুমতি নিয়ে নয়, রাজপথে নামবো।’

গয়েশ্বর বলেন, ‘এই সরকারের বাধা দেয়ার কোনো অধিকার নেই। জনগণের ভোটে যারা নির্বাচিত নয় তাদের আদেশ, নিষেধ মানার জন্য জনগণ প্রস্তুত নয়। জনগণ তাদের আদেশ নির্দেশ মানবে না।’

সরকারকে বিএনপি নেতা বলেন,‘যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পদত্যাগ করুন। নিয়ম অনুযায়ী নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা দিয়ে দ্রুত নির্বাচন দিন। নির্বাচন নিয়ে কোনো হেলাফেলা করবেন না। একদিকে আমরা কোর্টের বারান্দায় প্রতিদিন ঘুরবো আর আপনারা হেলিকপ্টারে ঘুরে বেড়াবেন এটা বেশিদিন মেনে নিতে পারবো না।’

জেল, জুলুম করে বিএনপিকে নির্মূল করে- দুর্বল করে একতরফা নির্বাচন করার চিন্তা থাকলে তা বাদ দেয়ার পরামর্শ দেন গয়েশ্বর। বলেন, ‘এটা আপনাদের দিবাস্বপ্ন। বিএনপিকে ছাড়া,বেগম খালেদা জিয়াকে ছাড়া কোনো নির্বাচন হবে না। এমন নির্বাচন হতে দেব না। শেখ হাসিনার অধীনেও কোনো নির্বাচন নয়।ভেবে নেন কোন পথে যাবেন।’