বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন নিয়ে জাতিসংঘের (ইউনিসেফ) উদ্বেগ প্রকাশ!

নিউজ ডেস্ক সময়ের কণ্ঠস্বর ~ বিশেষ বিধান রেখে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন প্রণয়নের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক জরুরি তহবিলের (ইউনিসেফ) বাংলাদেশ প্রতিনিধি এডুয়ার্ড বেগবেদার একটি ই-মেইল বার্তায় এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশে জাতীয় সংসদে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন চলতি সপ্তাহে পাস হয়েছে। এতে বিশেষ ক্ষেত্রে ১৮-এর নিচে মেয়েদের এবং ২১-এর নিচে ছেলেদের বিয়ের বিশেষ বিধান রাখা হয়েছে।

unisafe -chaild marrige-2016

জাতিসংঘের (ইউনিসেফ) বাংলাদেশ প্রতিনিধি এডুয়ার্ড বেগবেদার বলেন, বাল্য বয়সে একটি শিশুর বিয়ে হলে তার প্রভাব পড়ে জীবনভর। এটি শিশুর বেড়ে ওঠার সুযোগ-সুবিধাও সীমিত করে।

ইউনিসেফ একটি পরিসংখ্যানের মাধ্যমে দেখিয়েছে, ২০০৬ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত মোট দুই-তৃতীয়াংশ বাল্যবিবাহ কমেছে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন আইনে বিশেষ বিধান থাকায় এই অর্জন হুমকির মুখে পড়তে পারে।

বাংলাদেশে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৬ অনুমোদন, তবে আইনের বিশেষ বিধান নিয়ে বিতর্ক

ballyo bibaho ain

গত ২৪ নভেম্বর ২০১৬-এ বাংলাদেশের সরকার বিয়ের জন্য মেয়েদের ক্ষেত্রে কমপক্ষে ১৮ বছর এবং ছেলেদের ২১ বছর বয়স হওয়ার শর্ত রেখে ‘বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন’ অনুমোদন দিয়েছে। বাল্যবিবাহ কমানোর জন্যে এই আইনে কঠিন সাজা অর্থাৎ জেল ও জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে এবং সাজার পরিমাণ এর সাথে জড়িত থাকার পরিমাণের উপর নির্ভর করে।

তবে বিশেষ প্রেক্ষাপটে আদালতের নির্দেশ নিয়ে এবং মা-বাবার সমর্থনে অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদেরও বিয়ের সুযোগ রাখা আছে এ আইনে এবং বলা হচ্ছে যে এটা মেয়েদের সম্মান বাঁচাবে।

দেশটিতে ‘বিশেষ প্রেক্ষাপটে’ মেয়েদের বিয়ের বয়সে ছাড়ের সরকারি সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে যে এতে ধর্ষণ ও বাল্যবিবাহের মাত্রা বাড়বে।

উল্লেখ্য,বাল্যবিবাহ বিশ্বব্যাপী একটি সমস্যা এবং বাল্যবিবাহের প্রচলন আছে এমন ২০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। যদিও বাংলাদেশে আইন করে বিবাহের বয়স নির্ধারণ করা আছে এইতো এক দশক আগেই অধিকাংশ মেয়ের বিয়ে ১৮ বছরের আগে হতো।

বর্তমানে এর সংখ্যা কিছুটা কমেছে কারণ লিঙ্গবৈষম্য দূরীকরণে বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। বাল্যবিবাহের মূলে রয়েছে দারিদ্র্যতা, নারীদের নিরাপত্তা এবং অশিক্ষা, যা নারীকে স্বাবলম্বী হতে দেয় না। বাল্যবিবাহের শিকার নারীরা অসুস্থতায় ভুগে এবং দাম্পত্য সহিংসতার শিকার হয়।