বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ গাড়ি ‘দ্য বিস্ট’!

news_picture_43688_the_beast1


সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ

প্রাণনাশের সর্বোচ্চ চেষ্টা ঠেকাতে সক্ষম এমন আধুনিক ও সর্বোচ্চ নিরাপদ গাড়ি হিসেবে পরিচিত ‘ক্যাডিলাক ওয়ান’ বা ‘দ্য বিস্ট’ এর নতুন মডেল তৈরি করা হয়েছে। এটি খুব শিগগির মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অফিসিয়াল গাড়ি হিসেবে ব্যবহার হবে।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে বর্তমানে যে মডেলের ‘দ্য বিস্ট’ ব্যবহার করছেন ট্রাম্প, তারই আরেকটি নতুন মডেল তৈরি করা হয়েছে। যা বর্তমানটির মতো সিলভার-ব্লাক রঙের। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জেনারেল মোটরস, হোয়াইস হাউসে তা পাঠানোর আগে শেষ পর্যায়ের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এ ধরনের ১২টি গাড়ি ব্যবহার করে থাকেন, যা বিশ্বজুড়ে তাদের সফরের আগে পাঠানো হয়ে থাকে। তর্কসাপেক্ষে সবচেয়ে নিরাপদ গাড়ি বলা হয়ে থাকে ‘দ্য বিস্ট’কে। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কী কী সুবিধা রয়েছে এ গাড়ির।

৮ টন ওজনের এ গাড়িতে ব্যবহৃত হয়েছে ৮ ইঞ্চি পুরু ইস্পাতের দরজা, যা বোয়িং ৭৫৭ উড়োজাহাজের কেবিন দরজার ওজনের সমমানের। এটি বায়োলজিক্যাল এবং কেমিক্যাল আক্রমণ প্রতিহত করতে সক্ষম। গাড়িতে ৪ আসন বিশিষ্ট প্রেসিডেন্ট কামরা ‘সিলগালা’ হয়ে থাকবে অর্থাৎ অন্য কারো পক্ষে তা খোলার উপায় নেই। রয়েছে নিজস্ব অক্সিজেন ব্যবস্থা।

গাড়িটি শুধু বুলেটপ্রুফ বা গুলি প্রতিরোধীই নয়, মিসাইল কিংবা গ্রেনেডের আঘাতেও গাড়িটির আরোহীর কোনো ক্ষতি হবে না। গাড়িটির বডি দ্বিগুণ শক্তিশালী স্টিল, অ্যালুমিনিয়াম, টাইটেনিয়াম এবং সিরামিক দিয়ে তৈরি, যা ৫ ইঞ্চি পুরু এবং মিলিটারি গ্রেডের। বুলেট, গ্রেনেড ঠেকাতেও সক্ষম পলিকার্বোনেট ও পাঁচ স্তরের কাচের জানালাও।

গাড়িটির কোনো জানালা খোলা রাখা যায় না। বিশেষ প্রয়োজনে কেবলমাত্র চালক তার জানালাটি ৩ ইঞ্চি পরিমাণ খুলতে পারবে। গাড়ির চালক হবে, মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর একজন সুপ্রশিক্ষিত গোয়েন্দা।

রাস্তায় বোমা বিস্ফোরণের পরিস্থিতির মধ্যে দিয়েও এই গাড়ি এগিয়ে যেতে পারে এবং এর জ্বালানি ট্যাংক বিস্ফোরণ প্রতিরোধী। অর্থাৎ বোমা বা গুলি করে গাড়ির তেলের ট্যাঙ্ক চাইলেই ফুটো করে দেয়া যাবে না। গাড়ির চাকাগুলো এমনভাবে তৈরি যে বোমায় এর টায়ার ক্ষতিগ্রস্ত হলেও এটি চলবে।

গাড়িটি নিজস্ব মোবাইল নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত, ফলে অত্যন্ত নিরাপদে প্রেসিডেন্ট তার নেটওয়ার্কে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখতে পারেন। প্রয়োজনে পড়লে যেন পৃথিবীর যেকোনো স্থানে পরমাণু হামলার হুকুম এ গাড়িতে বসেই দিতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট, সে ব্যবস্থাও রয়েছে। এছাড়া নাইটভিশন ক্যামেরা সুবিধা ছাড়াও রয়েছে অক্সিজেন সিলিন্ডার, রক্তের গ্রুপের ব্যাগ সহ জরুরি নানা সেবা।

অর্থাৎ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে সুরক্ষিত রাখার জন্য, যা যা প্রয়োজন সব ধরনের প্রতিরক্ষামূলক সুরক্ষাসম্পন্ন হচ্ছে ‘দ্য বিস্ট’ গাড়ি।

শুধু আত্মরক্ষাই নয়, শক্রুর ওপর পাল্টা আক্রমন চালানোর আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্রও মজুদ রয়েছে এ গাড়িতে। আক্রমণকারীর ওপর গুলি চালাতে গাড়ির সম্মুখে লুকানো রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে রয়েছে টিয়ার গ্যাস।