ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো ইংল্যান্ড

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – দুইটি প্রস্তুতি ম্যাচেই জয়। জয়ের সেই অভ্যাসটা ধরে রেখে সফরকারী ইংল্যান্ড জিতে নিয়েছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটাও। শুক্রবার রাতে অ্যান্টিগার স্যার ভিভ রিচাডর্স স্টেডিয়ামে এউইন মরগানের দল জিতেছে ৪৫ রানে। অধিনায়ক মরগানের দশম ওয়ানডে সেঞ্চুরি এবং স্যাম বিলিংস ও বেন স্টোকসের হাফ সেঞ্চুরিতে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৯৬ রান। জবাবে ক্রিস ওকস ও লিয়াম প্লানকেটের তোপেড় মুখে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২.৪ ওভার বাকি থাকতেই অলআউট হয়ে গেছে ২৫১ রানে।

টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দারুণ একটা শুরুই এনে দিয়েছিলেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। নিজের তৃতীয় ও চতুর্থ ওভারে জেসন রয় ও জো রুটকে ফিরিয়ে দেন তিনি। তবে বিলিংস ও মরগান তৃতীয় উইকেটে ৬৭ রানের জুটি গড়ে শুরুর ধাক্কাটা ভালোভাবেই সামলে উঠেন। ৫২ রান করে বিলিংস ফিরে গেলেও জস বাটলার, বেন স্টোকস, মঈন আলিদের সঙ্গে জুটি বেঁধে দলকে ২৯৬ পর্যন্ত নিয়ে যান মরগান। ম্যাচের সবচেয়ে বড় জুটিটি মরগান গড়েছেন স্টোকসের সঙ্গে পঞ্চম উইকেটে, ১১০ রানের। তাতে স্টোকসের অবদান ৩ ছ্ক্কায় ৬১ বলে ৫৫ রান। ১১৬ বলে ১০৭ রানের ইনিংসের পথে মরগান মেরেছেন ১১টি চার ও ২টি ছক্কা। ২২ বলে ৩১ রান করে অপরাজিত থাকেন মঈন আলি। ক্যারিবীয় বোলারদের মধ্যে গ্যাব্রিয়েল ও অ্যাশলে নার্স নেন দুটি করে উইকেট। একটি উইকেট নেন দেবেন্দ্র বিশু।

west indies england২৯৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১০৮ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপর জেসন মোহাম্মদ ও জোনাথন কার্টার পঞ্চম উইকেটে ৮২ রানের জুটি গড়ে চেষ্টা করেছেন দলকে জয়ের পথে তুলে দেওয়ার। কিন্তু বাকিদের ব্যর্থতায় তাদের সেই চেষ্টা ভেস্তে গেছে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন জেসন মোহাম্মদ। ৭ চারে ৭২ রান করে দুর্ভাগ্যজনকভাবে রানআউটের মধ্যদিয়ে শেষ হয় তার লড়াই। কার্টার করেন ৫২ রান। ইংলিশ বোলারদের মধ্যে ওকস ও প্লানকেট নেন ৪টি করে উইকেট। অন্য উইকেটটি নেন স্পিনার আদিল রশিদ। দুর্দান্ত সেঞ্চুরির সুবাদে ম্যঅচসেরার পুরস্কারটি পেয়েছেন মরগান।