সৈয়দপুরে এলাকাবাসীর হাতে শিশু পাচারকারী সদস্য আটক, গণধোলাই

মোঃ মহিবুল্লাহ্ আকাশ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

নীলফামারীর সৈয়দপুরে এলাকাবাসীর হাতে শিশু পাচারকারী চক্রের জাতীয় সদস্য আটক হয়েছে। আটকের পর এলাকাবাসীর রোষানলে পড়ে গণধোলাইয়ের শিকার হয়ে বর্তমানে সে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। আটককৃত পাচারকারী তার নাম-ঠিকানা দিতে অস্বীকার করায় এবং তার অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার পরিচয় উদঘাটন করতে পারেনি। তবে হাসপাতালে ভর্তির রেজিষ্ট্রারে তার নাম দেয়া হয়েছে মোঃ হুমাইয়া (৩৫), পিতার নাম জাহাজ উদ্দিন এবং ঠিকানা হিসেবে লেখা হয়েছে জামালপুর।

তাকে হাসপাতালে ভর্তিকারী স্থানীয় এক যুবক জানায়, শুক্রবার (৩ মার্চ) বিকেলে উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়নের খোর্দ পোড়ারহাট মাছুয়াপাড়া গ্রামের জায়ফুল ইসলামের শিশু কন্যা চম্পা (৭) (ছদ্মনাম) তার দাদী সহ বাড়ির পাশের আলু ক্ষেত পাহারা দিচ্ছিল। এক পর্যায়ে চম্পাকে আলু ক্ষেতে রেখে তার দাদী বাড়ীতে গেলে একা থাকার সুযোগে ওই পাচারকারী তাকে মুখ চেপে ধরে পাশের ভুট্টা ক্ষেতে টেনে নিয়ে যায়। ওই ভুট্টা ক্ষেতের পাশ দিয়ে যাওয়া এক সাইকেল আরোহী মেয়েটির আর্তচিৎকার শুনতে পেলে তিনি ভুট্টা ক্ষেতে প্রবেশ করে দেখতে পান ওই পাচারকারী চম্পার হাত-পা বাঁধছে। এ ঘটনা দেখার পর উনি চিৎকার দিলে আশ-পাশের লোকজন ছুটে এসে হুমাইয়াকে আটক করে। এরপর উত্তেজিত এলাকাবাসীর জনরোষের শিকার হয়ে সে বেদম প্রহৃত হয়। গণধোলাইয়ে সে এর আগে আরো ৭ টি শিশু বাচ্চা এভাবে চুরি করে পাচার করেছে বলে স্বীকার করে। এমন কথা শোনার পর এলাকাবাসী আরো ক্ষিপ্ত হয়ে মারপিট করতে থাকলে স্থানীয় কিছু যুবক তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে সোপর্দ করে। এরপর তারাই সেখান থেকে রাত ১টার দিকে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

child-soidpurশনিবার (৪ মার্চ) সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার সুলতানা নাসেরা তুলি সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে বর্তমানে তাকে ৪র্থ তলায় পুরুষ বিভাগের একটি রুমে তালাবদ্ধ রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বোতলাগাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল চৌধুরীর বক্তব্য জানতে তার মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার ফোন করেও সেটি বন্ধ থাকায় কোন মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আমীরুল ইসলাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, এক ব্যক্তিকে এলাকাবাসী শিশু পাচারের অভিযোগে আটক করে গণধোলাই দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেছে বলে শুনেছি। তার শারিরীক অবস্থা জিজ্ঞাসাবাদের মত না হওয়ায় হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েও তার পরিচয় নেয়া সম্ভব হয়নি। তিনি আরো বলেন, তাকে আমাদের নিরীক্ষণের মধ্যে রাখা হয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদের মত অবস্থায় আসলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।