‘কওমি মাদ্রাসা সম্পর্কে এদিক-সেদিক বললে খবর আছে’

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি- হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব জুনাইদ বাবুনগরী বলেছেন, কওমি মাদ্রাসার মাধ্যমে দেশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার চেষ্টা করা হচ্ছে। যদি তাদের জঙ্গি বলা হয়, সন্ত্রাসী, তা হলে ১৬ কোটি জনতা তাদের চক্ষু তুলে ফেলবে। কওমি মাদ্রাসা সম্পর্কে এদিক-সেদিক বললে খবর আছে।’

Captureশনিবার রাতে ময়মনসিংহে দিনব্যাপী সীরাতুন্নবী সম্মেলনে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ইত্তেফাকুল ওলামা নামে একটি সংগঠনের ময়মনসিংহ জেলা শাখা এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

বাবুনগরী বলেন, ‘বাংলাদেশে ইসলামের বিরুদ্ধে ডাইরেক্ট কিছু, ইনডাইরেক্ট কিছু বড় বড় চক্রান্ত শুরু হয়েছে। বর্তমান নব্বই ভাগ মুসলমানের দেশে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে গ্রিক দেবীর নামে একটা মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে। এটার আসল উদ্দেশ্য হলো এ দেশের কোটি কোটি মুসলমানের ইমান-আকিদা নিয়ে ছিনিমিনি খেলা করা। মূর্তিপূজক রাষ্ট্র ভারত। এর পরও ভারতের সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে কোনো মূর্তি নাই। বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের সামনে এই মূর্তি কেন? জবাব চাই।’

‘সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে যদি মূর্তি অপসারণ করা না হয়, ১৬ কোটি তৌহিদি জনতাকে সঙ্গে নিয়ে আবার দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরও বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসার ওলামায়ে কেরামরা যদি শিক্ষার্থীদের শিক্ষিত না করতাম, তা হলে ওরা চোর আর ডাকাত হইত। বিশৃঙ্খলা আরো বেশি হতো।