খেলা চলাকালিন সময়ে তর্কে জড়িয়ে ভারসাম্য হারালেন কোহলি-শর্মা-স্মিথ!

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – গতকাল শনিবার বাঙ্গালোরে দ্বিতীয় টেস্ট শুরুর আগেই অজি অধিনায়কের সঙ্গে বাগযুদ্ধ চলে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির। সেই যুদ্ধের রেশ মাঠেও দেখা গেল। রোববার দ্বিতীয় দিনের খেলায় তর্কে জড়িয়ে রীতিমতো ভারসাম্য হারান স্মিথ ও কোহলি।

এছাড়া ভারতের পেসার ইশান্ত শর্মাও বেশ কয়েকবার স্টিভেন স্মিথকে খুবই ‘নোংরা’ভাবে স্লেজিং করেন।

এটা ছিল ২৭তম ওভারের ঘটনা। স্ট্রাইকে ছিলেন স্টিভ স্মিথ। বল হাতে ছিলেন ইশান্ত শর্মা। বল করেই যেন হিংস্র প্রাণীর মতো স্লেজিং করতে থাকেন ইশান্ত।

ইশান্ত শর্মার আগে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি যেন তর্কেই জড়িয়ে পড়েন স্মিথের সঙ্গে।

প্রথম ইনিংসে ভারত ১৮৯ রানে অলআউট হওয়ার পরই যেন চাপে রয়েছে কোহলি বাহিনী। তিন দিনেই হারের অজানা শংকা থেকেই হয়তো ২২ গজে কথার যুদ্ধ শুরু করেন কোহলি।

অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ৩৩ রানে রবীচন্দন অশ্বিনের বলে আউট হওয়ার পর মাঠে নামেন স্মিথ। তখন ২২তম ওভারের খেলা চলছিল।

kohli-isantকোহলির সঙ্গে স্মিথের তর্কের শুরু তখন থেকেই। অশ্বিনের করা বলটি স্ট্রেইট ডাইভ করেন স্মিথ। নন-স্ট্রাইকে থাকা রেনশো পথ আগলে রেখেছিলেন অশ্বিনের।

এ নিয়ে দুজনে জড়িয়ে পড়েন তর্কে। অশ্বিনের সঙ্গে তাতে যোগ দেন ভারতের অধিনায়ক। পরে অবশ্য আম্পায়ার নাইজেল লংয়ের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মীমাংসা হয়।

কিন্তু সেই তর্ক থামার পর নতুন করে শুরু হয় স্মিথ আর কোহলির ঝগড়া। স্মিথের বিরুদ্ধে এলবিডব্লুর একটি রিভিউ নিয়েছিলেন কোহলি। কিন্তু সফল হননি ভারত অধিনায়ক। পানি পানের বিরতির সময়েও দুজনকে বাক্য বিনিময় করতে দেখা গেছে।

অবশ্য লাঞ্চ বিরতির ১৫ মিনিট আগে রবীন্দ্র জাদেজার বলে আউট হন স্মিথ। শুরু থেকেই স্বাচ্ছ্যন্দে ছিলেন না অজি অধিনায়ক। তিনি ৫২ বল খেলে ৮ রান করে আউট হন।

অবশ্য বিরাট কোহলির এমন ঘটনা নতুন নয়। ২০১৪ সালে ওভালে স্মিথের সঙ্গে তর্কে জড়ানোর অপরাধে বিরাট কোহলিকে ম্যাচ ফির ৩০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছিল।