কুড়িগ্রামে ধান ক্ষেতে ব্যাপকভাবে মাজরা পোকার আক্রমন

ফয়সাল শামীম, নিজস্ব প্রতিবেদক: কুড়িগ্রামের ৯টি উপজেলার সবত্রই চলতি আমন বোরো ধান ক্ষেতে মাজরা পোকা ব্যাপক হারে আক্রমন করেছে বলে জানা গেছে।

dhan

সরেজমিন নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে যে, মাজরা পোকার আক্রমনের ফলে ধানের গাছ বাদামী রঙ হয়ে শুকিয়ে যাচ্ছে।

ভিতরবন্দ এলাকার কৃষক শফিউল আলম জানান, চলতি মওসুমে ৬ বিঘা জমিতে ২৮ জাতের বোরো ধান চাষ করেছেন তার সব ক্ষেতেই মাজরা পোকা আক্রমন করেছে।

কৃষক আব্দার হোসেন ও আব্দুস ছামাদ বলেন, কালো মাথা মাজরা পোকা ক্ষেতে ব্যাপকহারে ধরেছে। ধানের মুল কান্ড খেয়ে ফেলায় বোরো ধান ক্ষেত গুলো দলদে ও বাদামী রঙ হয়ে পরেছে।

যোগাযোগ করা হলে নাগেশ্বরী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ মাসুদুর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, কালো মাথা মাজরা পোকা ফসলের ক্ষতিকর পতঙ্গ। এই পোকা ধানের কান্ডের অভ্যন্তরে ঢুকে কুড়েকুড়ে গাছের মুল মাজা বা থোর খেয়ে ফেলে। ফলে ধানের গাছ বাদামী রঙ হয়ে মারা যায়। মাজরা পোকা ধানের গাছেই ড়িমপাড়ে বংস বৃদ্ধি করে।

ভোগডাঙ্গার কৃষক সাইদুর রহমান ও বাবর আলীসহ কয়েকজন জানান, বোরো ধানে মাজরা পোকার আক্রমন হলেও কৃষি বিভাগের লোকজনের দেখা পাচ্ছি না। ফলে নিজেরাই বাজার থেকে বিভিন্ন ধরনের কিটনাশক কিনে ক্ষেতে দিচ্ছি।

কুড়িগ্রাম কৃষি বিভাগের উপ-পরিচালক কৃষিবীদ মকবুল হোসেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, এবারে জেলায় মোট ১,৮২৭০ হেক্টর জমিতে আমন বোরো ধান চাষ করা হয়েছে। মাজরা পোকা প্রধানত তিন প্রকার। তা হলো হলুদ মাজরা, কালো মাথা মাজরা ও গোলাপী মাজরা। এছাড়া সাদা প্রজাতির মাজরা ইদানিং পাওয়া যাচ্ছে। তবে হলুদ মাজরা পোকা বোরো ধানের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে। তিনি মাজরা আক্রান্ত ক্ষেতে উন্নতজাতের কিটনাশক স্প্রে এবং জমিতে পারসিং করার পরামর্শ দেন।