চিরকুট লিখে তাড়াশে আদিবাসি গৃহবধুর আত্মহত্যা

আশরাফুল ইসলাম রনি, তাড়াশ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে মুক্তি রানী (২৫) নামে এক আদিবাসি গৃহবধু গ্যাস ট্যাবলেট (কিটনাশক) খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে উপজেলার তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের অতুল খাঁর স্ত্রী। সোমবার দুপুরে উপজেলার তালম ইউনিয়নের গুল্টা গ্রামের ধাপপাড়ায় নিহত গৃহবধুর স্বামীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

atohotta

আজ মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। এ সময় পুলিশ গৃহবধুর লেখা চিরকুট ও ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন। নিহত গৃহবধু মুক্তি রানী বস্তুল কারিতাস স্কুলের শিক্ষিকা।

মুক্তির মামা শ্রী চন্দন এক্কা জানান, সোমবার দুপুরে পার্শবর্তী গ্রামের ক্যাবল ব্যবসায়ী আব্দুল হামিদ কারিতাস ভিত্তিক শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক এক শিশু সন্তানের জননী মুক্তি রাণীর সাথে কৌশলে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এর একপর্যায়ে মোবাইল ফোনে মুক্তির নগ্ন ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকী দিতে থাকে। নিরুপায় গৃহবধু সোমবার দুপুরে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করে। তিনি আরো জানান, গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় মুক্তি তার লেখা শেষ চিঠির বিষয়ে আমাকে বলে যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আশরাফ উদ্দিন জানান, শত মানুষের সম্মুুখে মুক্তির স্বামী ওতুল তাড়াশ থানা পুলিশকে তার স্ত্রীর লেখা শেষ চিঠি এবং মোবাইল ফোনটি দিয়ে বলেন, হামিদের কারণেই আমার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে।

এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনজুর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।