হাঁসের ভ্রাম্যমাণ খামার

জাহিদুল ইসলাম আলিম, লালপুর প্রতিনিধি: লালপুর উপজেলার ধুপইল থেকে বড়াল নদের উপর নির্মিত ব্রীজের উপর দিয়ে বাগাতিপাড়া উপজেলার দয়ারামপুর যাওয়ার পথে বড়াল নদে প্রায়ই দেখা মিলবে ঝাঁকে ঝাঁকে হাঁসের পাল। নাটোরের বিভিন্ন অঞ্চলের বেকার যুবকরা গড়ে তুলেছেন হাঁসের ভ্রাম্যমাণ খামার।

hasar-pukurআজ এখানে তো কাল আরেক জায়গায়। নদ-নদীতে হাঁসের পর্যাপ্ত খাবারের পরিমানের উপর নির্ভর করে প্রতিনিয়তই হাঁসের পাল নিয়ে ছুটে বেড়াতে হয় জেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। অনেক সময় একই স্থানে ৫/৭ দিনও অবস্থান করতে হয় তাদের।

নাটোরের সিংড়া উপজেলার কাজিনগর এলাকার তিন যুবক ইদুল, শাহাদত হোসেন, মনিরুল ইসলাম গড়ে তুলেছেন হাঁসের খামার। ৩০ হাজার টাকা দিয়ে খাকি ক্যাম্বল জাতের এক হাজার হাঁসের বাচ্চা কিনে শুরু করেন হাঁস পালন। বাচ্চা গুলের বয়ন ২ মাস হওয়ার সাথে সাথেই সেগুলো নিয়ে বেরিয়ে পড়েন হাঁসের খাদ্য নির্ভর উম্মক্ত জলাশয়ে। কখনো খাল বিলে আবার কখনো নদী নালায়।

ছয় মাসের ব্যবধানে ওই বাচ্চাগুলো পরিনত হাঁস হিসেবে ডিম দেওয়া শুরু করে। হিসাব অনুযায়ী ১ হাজার হাঁসের একটি ভ্রাম্যমাণ খামারে প্রতিদিন গড়ে ৪০০ ডিম পাওয়া যায়। বর্তমান বাজার দর অনুযায়ী (৮ টাকা) এর দাম তিন হাজার টাকা। খরচ বাদ দিয়ে প্রতিদিন লাভ থাকে কমপক্ষে দুই হাজার টাকা। এছাড়া ডিম দেওয়া বন্ধ হলে হাঁসগুলো বিক্রি করে পাওয়া যায় মোটা অঙ্কের টাকা।

শাহাদত হোসেন জানান, পর্যাপ্ত খাবার পাওয়া যাওয়ায় দূর-দূরান্ত থেকে হাঁসগুলোকে এখানে আনা হয়েছে চড়ানোর উদ্দেশ্যে। সারা দিন হাঁসের পেছনে ছুটোছুটি করে রাতে ব্রীজের নিচে পলিথিন দিয়ে তৈরী তাবুর নিচে ঘুমিয়ে রাত কাটায়। এ সময় হাঁসগুলো নাইলনের নেট দিয়ে অস্থায়ীভাবে তৈরি করা ঘেরে রাখা হয়। তিনি জানান, ভ্রাম্যমাণ খামারে হাঁস পালন লাভজনক হওয়ায় বর্তমানে তার এলাকার অনেক বেকার যুবকই হাঁস পালনে আগ্রহী হচ্ছেন। ফলে এভাবে হাঁস পালনকারীর সংখ্যাও দ্রুত বাড়ছে।

লালপুরে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা

salai-masin

‘নারী-পুরুষ সমতায় উন্নয়নের যাত্রা, বদলে যাবে বিশ্ব কর্মে নতুন মাত্রা’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ বুধবার নাটোরের লালপুরে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।

উপজেলা সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আবু তাহির, উপজেলা কৃষি অফিসার হাবিবুল ইসলাম খান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার পারুল, আব্দুলপুর সরকারি কলেজের প্রভাষক নিগার উম্মে রেশমা এ্যামি, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নীলা হাফিয়া প্রমূখ।