‘আমরা অন্যায় করেছিলাম, একজনকে ঠকিয়ে আমরা ইউনূস সাহেবকে লাইসেন্স দিয়েছিলাম’

সময়ের কণ্ঠস্বর – অন্য একজনকে ঠকিয়ে ড. ইউনূসকে গ্রামীণফোনের লাইসেন্স দিয়েছিলেন বলে সংসদে স্বীকার করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের ডাক, তার ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী নাসিম বলেন, এই লোকটাকে (ড. ইউনূসকে) মোবাইল ফোনের লাইসেন্স দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছিলেন। এই সংসদে দাঁড়িয়ে স্বীকার করছি, আমরা অন্যায় করেছিলাম। একজনকে ঠকিয়ে আমরা ইউনূস সাহেবকে লাইসেন্স দিয়েছিলাম। সেটা তিনি বিক্রি করে নোবেল প্রাইজ নিয়েছেন।

বুধবার রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. ইউনূস সম্পর্কে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তি রয়েছেন। তিনি ড. ইউনূস সাহেব। তাকে সম্মান করি। আমরা সম্মান করে ভুল করেছিলাম। এই সংসদে দাঁড়িয়ে স্বীকার করছি, ৪ জনের মধ্যে ৩জন মোবাইলের লাইসেন্স পাওয়ার যোগ্য ছিলেন। একজনকে ঠকিয়ে আমরা এই ইউনূস সাহেবকে লাইসেন্স দিয়েছিলাম। সেই অর্থ বিক্রি করে নোবেল প্রাইজ নিয়েছেন। লাইসেন্স পেয়েই তিনি বেইমানি করেছেন।

d.-unusতিনি আরও বলেন, আমরা বিনা পয়সায় রেলওয়ের অপটিক্যাল ফাইবার দিয়েছিলাম। তা দিয়ে তিনি গ্রামীণ ফোনের লাইন করেছিলেন। আমরা জানতাম না, তার মধ্যে এসব ষড়যন্ত্র লুকিয়ে রয়েছে। তিনি দুনিয়ার কাছে প্রমাণ করতে চাইলেন বাংলাদেশ দুর্নীতিবাজ। তবে শেখ হাসিনা আছেন বলেই আজ প্রমাণিত হয়েছে ওরা মিথ্যাবাদী। আওয়ামী লীগ নেত্রী শেখ হাসিনা সত্যবাদী। পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করে দিয়ে প্রমাণ করেছেন।