কালিয়াকৈরে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

gfjj


আলমগীর হোসেন, কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:

ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের সাবেক কমান্ডার ও প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার নাম বাদ দিয়ে তাকে রাজাকারের তালিকায় নাম দিয়ে খসড়া তালিকা প্রকাশ করায় মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী।

গতকাল বুধবার দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ফুলবাড়িয়া বাজার এলাকায় ইউপি কার্যালয়ের সামনে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসীর ওই কর্মসুচির আয়োজন করেন।

মানববন্ধন, মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া এলাকার মৃত শুকুর মাহমুদ মিয়ার ছেলে মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু খলিফা (৮৩)। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে আফসার বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধকালিন সময়ে ব্যটালিয়ান ডি কোম্পানীর এক জন সৈনিক হিসেবে অংশ নেয়। যা ময়মনসিংহ সদর দক্ষিন ও ঢাকা সদর উওর পর্যন্ত বিসৃত ছিল। তিনি ফুলবাড়িয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি সরকারের মুক্তিযোদ্ধা ভাতা গ্রহন করেছেন। লাল মুক্তি বার্তা ও গেজেটে তার নাম রয়েছে। এলাকার মুক্তিযোদ্ধা ও বয়স্ক লোকজনও বলেছেন তিনি মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু কালিয়াকৈর উপজেলা মুক্তি যাচাই বাছাই কমিটি মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে তার নাম বাদ দিয়ে রাজাকার হিসেবি চিহিৃত করে খসড়া তালিকা প্রকাশ করে। এ সংবাদে এলাকাবাসী বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠুকে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দিয়ে রাজাকারের তালিকা করার প্রতিবাদে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।

প্রতিবাদ সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধার খসড়া তালিকা থেকে বাদ পড়া মোয়াজেম হোসেন মিঠু বলেন, আমার কাছে সকল তথ্য প্রমাণাদি থাকা সত্ত্বেও আমার নাম মুক্তিযোদ্ধা থেকে বাদ দিয়ে রাজাকার তালিকায় প্রকাশ করেছে। আমি এর প্রতিবাদ জানাই এবং রাজাকার তালিকা থেকে বাদ দিয়ে পুনরায় মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় প্রকাশ করার দাবী জানান।

মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল শেষে ফুলবাড়িয়া বাজার বটতলায় প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী আইএসসি। এ সময় বক্তব্য রাখেন, ফুলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম, মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু, রহিম উদ্দিন মাতাবর, জয়নাল আবেদীন, জুয়েল সরকার, জসিমউদ্দিন, রফিকুল ইসলাম, খালেদ সাইফুল্লাহ প্রমুখ।