দিনাজপুরে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে নির্যাতনের শিকার ভারতীয় কিশোরী

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার: আন্তর্জাতিক নারী দিবসে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ভারতীয় এক কিশোরী নির্যাতনের শিকার হয়েছে। পার্বতীপুরে শহরের এক যুবক ভারতের এক কিশোরীকে পালিয়ে নিয়ে এসে এই শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে। ওই কিশোরী পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে।

jowtok

জানা গেছে, দিনাজপুরের পার্বতীপুর শহরের রোস্তমনগর মহল্লার সুজন শেখের ছেলে সাগর শেখ (২৮) প্রায় ৮ মাস পূর্বে ভারতের আসাম প্রদেশের সুনিতপুর জেলার তেজপুর এলাকার মহাভৈরব থানার গুটলংবিতোসুতি গ্রামে অবস্থান নেয়। সেখানে পিকআপ ড্রাইভার আবদুর রশিদ ও মা মাজেদা বেগমের মেয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রী রেজিনা আহম্মেদ (১৭)কে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে। সেখানে কয়েক মাস থাকার পর রেজিনাকে কলিকাতায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বাংলাদেশে তার নিজ বাড়ী পার্বতীপুরে নিয়ে আসে। প্রায় দুই মাস ধরে সংসার করার সময় রেজিনাকে প্রায়ই সে শারিরীক ভাবে নির্যাতন করতো। বুধবার বিকেলে রেজিনাকে চরমভাবে শারিরীক নির্যাতন করলে সে নিরুপায় হয়ে পালিয়ে গিয়ে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়।

পরে হাসপাতাল থেকে উক্ত ভারতীয় কিশোরীকে সাগর শেখ দলবল নিয়ে অপহরনের চেষ্টা চালায়। এ সময় খবর পেয়ে পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারা পালিয়ে যায়। পার্বতীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেজিনার সংগে কথা হলে সে এ প্রতিবেদককে জানায়, সাগর ভারতে থাকাকালীন অবস্থায় নিজেকে ভারতের কলিকাতায় তার বাড়ী বলে পরিচয় দেয়। তার সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে বিয়ে করে। বিয়ের কয়েক মাস পর কলিকাতা নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বাংলাদেশে নিয়ে আসে। সে আরো জানায়, তার গর্ভে তিন মাসের সন্তান রয়েছে। এই অবস্থাতেই সাগর শেখ তার উপর শারিরীক নির্যাতন চালিয়ে আসছে। সে আর তার স্বামীর ঘরে ফিরে যেতে চায় না। ভারতে তার মা-বাবার কাছে ফিরে যেতে চায়।

এ ব্যাপারে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ এ এইচ এম বোরহান উল ইসলাম সিদ্দিকি জানান, রেজিনা শারিরীক নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। ভারতীয় এই কিশোরীকে পার্বতীপুরের যুবক সাগর শেখ বিয়ে করে এনে শারিরীক নির্যাতন করায় সে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

হাসপাতালের ওসিসি এর প্রোগ্রাম অফিসার রাবেয়া খাতুন জানান, ভারতীয় কিশোরী রেজিনাকে তাদের সংস্থার পক্ষ থেকে আইনী সহায়তাসহ সব রকমের সহযোগিতা করা হবে। ব্র্যাকের কর্মসূচী সংগঠক মোছাঃ নাজমা বেগম জানান, ভারতীয় কিশোরী রেজিনাকে তাদের সংস্থার পক্ষ থেকে আইনী সহায়তাসহ সব রকমের সহযোগিতা করা হবে।

পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাক আহম্মেদ সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে।