কালিয়াকৈরে বন প্রহরীদের উপর হামলায় আহত-৫, থানায় মামলা

আলমগীর হোসেন, কালিয়াকৈর প্রতিনিধি: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কারলসুরিচালা এলাকায় গতকাল বুধবার দুপুরে অবৈধভাবে সরকারি বনভুমি দখলে বাঁধা দেওয়ায় বন প্রহরীদের উপর এলাকাবাসী হামলা চালিয়ে মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

mamla

এ সময় কমপক্ষে ৫ জন বন প্রহরী আহত হয়। ওই ঘটনায় চন্দ্রা বিট কর্মকর্তা হারুন উর রশিদ বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় মামলা (নং-১৫) দায়ের করেছেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, কালিয়াকৈর রেঞ্জের চন্দ্রা বিটের বনপ্রহরী মনিরুল হক, শাজাহান, শাজাহান (২), আলী হোসেন ও বনমালি ইমাম হোসেন ওই দিন দুপুরে উপজেলার কারলসুরিচালা এলাকায় বন ভূমিতে টহলে যায়। সেখানে গিয়ে দেখে কারলসুরিচালা এলাকার নছুম উদ্দিনের ছেলে মজিবর (৫৫) ও আঃ আজিজ (৪৮) এর নেত্রত্বে ২৫/৩০ জন লোক অবৈধভাবে বনভুমি জবর দখল করে টিনের পোলট্রি ফার্ম নির্মান করছে।

এ সময় বনের লোকজন বাঁধা দিলে দখলকারীর লোকজন চড়াও হয়ে বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে বন প্রহরীদের উপর হামলা করে এলোপাথারী মারতে থাকে এবং প্রানে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। পরে জানমালের নিরাপত্তা জনিত কারনে ও জনবল কম থাকায় বন প্রহরীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এ সময় এলাকাবাসীর হামলায় বনপ্রহরী মনিরুল হক, শাজাহান, শাজাহান (২), আলী হোসেন ও বনমালি ইমাম হোসেন ওই ৫জন আহত হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী আব্দুল আজিজ বলেন, আমরা দীর্ঘ দিন ধরে ওই জমি ভোগ দখল করে বসবাস করে আসছি। ওই দিন ওই জমিতে কাজ করতে গেলে বন বিভাগের লোকজন বাঁধা দেয়। ফলে তাদের সাথে কথা কাটা কাটি ও ধাক্কা ধাক্কির ঘটনা ঘটেছে।

কালিয়াকৈর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুল মোতালেব মিয়া সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, চন্দ্রা বনবিট কর্মকর্তা একটি মামলা দায়ের করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।