ফুলগাজীতে মাদক ব্যবসায়ীর হামলায় আনসার নিহত : ম্যাজিস্ট্রেটসহ আহত-৩

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: ফেনীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় আনসার সদস্য নওশের আলী নিহত ও পুলিশ সোর্স সুমন নিখোঁজ রয়েছে। বুধবার মধ্যরাতে ফুলগাজী উপজেলার (ভারত-বাংলাদেশ সিমান্ত) বদরপুর এলাকার খানা বাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

bs

আহত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা জানান, রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবৈধ মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করতে ফুলগাজী উপজেলার (ভারত-বাংলাদেশ সিমান্ত) বদরপুর এলাকার খানা বাড়ী এলাকায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় একাধিক মাদক বিক্রেতাকে মাদকসহ হাতে নাতে আটক করা হয়।

একপর্যায়ে স্থানীয় মাদক বিক্রেতাসহ ভারতীয় নাগরিকরা সংজ্ঞবদ্ধ হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এ সময় মাদক বিক্রেতাদের হামলায় ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানাসহ ৪ জন আহত হন।

এ ঘটনার পর থেকে আনসার সদস্য লেন্স নায়েক নওশের আলী (৪০) ও পুলিশ সোর্স সুমনসহ ২ জন নিখোঁজ হন। সকালে আনসার সদস্য নওশের আলীর লাশ ভারতীয় বিএসএফ এর তত্ত্বাবধানে চলে যায়। তবে পুলিশ সোর্স সুমনের বিষয়ে বিজিবি ও বিএসএফের কাছ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সোহেল রানাসহ আহত ৩ জনকে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ফুলগাজী থানার পরিদর্শক এস এম মোর্শেদ সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা মোতায়েন রয়েছে। আজ বিকেলে লাশ ফেরৎ দিবেন বলে জানান স্থানীয় বিজিবি। পুলিশ সোর্স সুমন এখনো নিখোঁজ রয়েছে।