নোয়াখালীতে পিকনিকের বাস চুরমার, আহত অর্ধশতাধিক: নিহত ১

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালী- ফেনী রোড়ের দাগনভূঞায় পিকনিকের বাস খাদে পড়ে ৫০ জন আহত হয়েছে। তবে এ ঘটনায় একজন নিহত হয়েছে বলে জানা গেলেও বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শুক্রবার ভোর রাত ১০ মার্চ সকালে ফেনী-নোয়াখালী আঞ্চলিক সড়কের দাগনভূঞায় তুলাতুলি বাজার এলাকায় বাস ও সিমেন্টবাহী ট্রাকের মুখোমখি সংর্ঘষ হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, ভোরে মোটরসাইকেল ওয়ার্কশপ মালিক সমিতির পিকনিকের বাসটি (একুশে মুন বাস) নোয়াখালীর মাইজদী থেকে তুলাতুলি পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা সিমেন্টবাহী একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখামুখি সংর্ঘষ হয়। এতে বাসটি রাস্তার পাশে খাদে পডে যায়।

আহত ব্যক্তিরা একজন নিহত হয়েছে জানালেও বিষয়টি পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করতে পারেনি, তার নামও পাওয়া যায়নি।

pik-up-bus

দাগনভূঞা উপজেলা সদর হাসপাতালের দায়ত্বিরত চিকিৎসক নাসরিন সুলতানা সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, অনেকেরই শরীরের বিভিন্ন অংশ কেটে গেছে, কারো কারো হাত পা ভেঙেছে, তবে গুরুতর কেউ নেই।

দাগনভূঞা থানার পরিদর্শক (ওসি) আসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, পিকনিকের বাসটি ৬০ জন যাত্রী নিয়ে নোয়াখালী থেকে রাঙ্গামাটি যাচ্ছিল। আহতরা সবাই নোয়াখালীর বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

দূর্ঘটনায় মনোয়ারা বেগম (৩০), বিকাশ (৪০), শাহাজাদা (৩১), কাউছারা বেগম (২৫), জাহিদ (১৩), রানী সাহা (৩০), তার স্বামী বিকাশ চন্দ্র সাহা, পলি (১৮) নাহিদ (৪) মো. আলি (৪ মাস) নাজমা (১৮) শাহালম (৪০) নাজিম উদ্দিন (২৫) সহ ৩০ জন আহত হয়। এদের মধ্য ১৩ জনকে দাগনভূঞায় উপজেলা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান আহতদের মধ্য ৩ জনের অবস্থা আশংকা জনক।