টি-২০ স্টাইলে খেলে সৌম্যর দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরি!

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – শ্রীলঙ্কার দেওয়া পাহাড়সম রান টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু এক অর্ধশতক হাঁকিয়েছেন ওপেনার সৌম্য। মাত্র ৪৩ বলে ওয়ানডে স্টাইলে ৫০ রান পূর্ণ করেন এই ব্যাটসম্যান। আর এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৩ রান। ১৩ রানে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল।

চতুর্থ দিনের চা বিরতিতে যখন গেল, তখনই শ্রীলঙ্কার হাতে ৪২৯ রানের লিড। প্রথম ইনিংসের ১৮২ রানের লিডের সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসের ৫ উইকেটে ২৪৭। চাইলে রঙ্গনা হেরাথ ইনিংস ঘোষণা করে দিতে পারতেন তখনই! তা না করে শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক হাঁটলেন রক্ষণাত্মক পথে। লিডটা আরও বড় করতে হেরাথ চা বিরতির পরও সতীর্থদের পাঠালেন ব্যাট করতে। তবে চা বিরতির পর খুব বেশি সময় ব্যাটিং করেনি শ্রীলঙ্কা।

৫ উইকেটে ২৪৭ রানের সঙ্গে আর মাত্র ২৭ রান যোগ করতেই পেরেরা মোস্তাফিজের কাটারের শিকার। আর পেরেরা আউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ইনিংস ঘোষণা করেন হেরাথ। দ্বিতীয় ইনিংসে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ তখন ৬ উইকেটে ২৭৪ রান। প্রথম ইনিংসের ১৮২ রান মিলিয়ে শ্রীলঙ্কার হাতে তখন ৪৫৬ রানের লিড।

মানে গল টেস্টে জিততে হলে চতুর্থ ইনিংসে বাংলাদেশকে করতে হবে ৪৫৭ রান। ১৪০ বছরের টেস্ট ইতিহাসে চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটি ৪১৮ রানের। ২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অ্যান্টিগা টেস্টে ৪১৮ রান তাড়া করে জিতেছিল ব্রায়ান লারার ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে এই রান তাড়ার পথে ক্যারিবীয়দের হাতে সময় ছিল দুই দিনেরও বেশি।

soummo-fifty

ফলে রান তোলার তাড়া তেমন ছিল না। মুশফিকদের লক্ষ্য তার চেয়েও ৩৯ রান বেশি। সময় চার সেশনেরও কম! মুশফিকরা জয়ের ভাবনা মোটেও মাথায় আনবে না সেটা বলাই বাহুল্য। লঙ্কান বোলারদের রুখে দিয়ে টেস্টটা ড্র করতে পারলেই বাংলাদেশের জন্য সেটা হবে জয়ের সমান।

শুক্রবার দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে শ্রীলঙ্কা দিনের প্রথম সেশনে করে ১ উইকেটে ৮৭ রান। দ্বিতীয় সেশনে দ্রুত রান তোলার দিকে মনোযোগ দিতে গিয়ে উইকেট হারায় ৪টি। সেই ৪টি উইকেটই তুলে নেন বাংলাদেশের দুই স্পিনার সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে উইকেট হারালেও লঙ্কানরা দ্রুত রান তোলার কাজটা করে যান ঠিকঠাক মতো। ফলে চা বিরতির আগের ৩১ ওভারেই তুলে ফেলে ১৬০ রান।

ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি করে লঙ্কানদের রানের চাকা দ্রুত ঘুরানোর কাজে নেতৃত্ব দিয়েছেন উপুল থারাঙ্গা। এ ছাড়া দিনেশ চান্ডিমাল অপরাজিত থাকেন কাটায় কাটায় হাফসেঞ্চুরি করে। চা বিরতির পর শ্রীলঙ্কার একমাত্র উইকেটটি নেন মোস্তাফিজ। মধ্যাহ্ন বিরতির আগে একমাত্র উইকেটটি নিয়েছিলেন তাসকিন আহমেদ।

উল্লেখ্য, প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার ৪৯৪ রানের জবাবে বাংলাদেশ করে ৩১২ রান।

রেকর্ড গড়েই জিততে হবে বাংলাদেশকে!