ঝুঁকিপূর্ন ভবনে চলছে ডোমারের জোড়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম

মোঃ মহিবুল্লাহ্ আকাশ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: নীলফামারীর ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম চলছে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে।

iunion

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে চেয়ারম্যান, মেম্বার ও সংশ্লিষ্ট পরিষদে নিয়োজিত ব্যাক্তিরা। ১০ বর্গ মাইল এলাকা বিশিষ্ট এই ইউনিয়নের জনসংখ্যা ৩৫ হাজার। ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ সমর্থিত নৌকা প্রতিকে নির্বাচিত আবুল হাসান।

সরেজমিনে ওই ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে দেখা যায়, ৪০ শতাংশ জমির উপর ১৯৮৭ইং সালে তৈরী করা ছোট ভবনটি বর্তমানে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ন অবস্থা পরিনত হয়েছে। ভবনের একটি হল রুমসহ মোট ৮টি রুম রয়েছে। এর মধ্যে ব্যাবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে ৬টি রুম। বাকী দুটো রুমের মধ্যে একটি রুম চেয়ারম্যানের, অপরটি সচিব ও উদ্যোক্তার। জায়গা না থাকায় সচিবের রুমটি সংস্কার করে সেখানেই ইন্টারনেট মেশিন বসানো হয়েছে। ফলে একটি রুমের ভেতরে সচিব ও উদ্যোক্তার কাজকর্ম করতে হচ্ছে। ভবনটির অনেক জায়গায় প্লাষ্টার খসে পড়ে জংধরা লোহার রড দেখা যাচ্ছে। ভবনের অনেক জায়গায় ফাটল ধরেছে। সামান্য ভূ-কম্পন বা ঝড় বাতাসে ভবনটি ধসে পড়ার আশংকা করছে সংশ্লিষ্টরা।

এ ব্যাপারে আশঙ্কা ব্যক্ত করে ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসান সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমাদের জীবনের কোন নিরাপত্তা নেই। যে কোন সময় ভবনটি ধসে পড়তে পারে। ভবনটি মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ন ও অরক্ষিত হওয়ায় প্রতিরাতে দুই জন করে গ্রাম পুলিশ দিয়ে পাহারা দিতে হচ্ছে।

ইউপি সচিব মোজাম্মেল হক সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, ভবনের কারনে আমাদের কাজকর্মে বিঘ্ন ঘটছে। জায়গার অভাবে একটি রুমে ইন্টারনেট সেবা এবং সচিবের কাজ চালাতে হচ্ছে। এ ছাড়া ভবনটিও মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ন অবস্থায় রয়েছে। গত ২৬/০৫/২০১৪ইং সালে নতুন ভবনের জন্য আবেদন পাঠানো হয়েছে। আগামীতে নির্দেশ আসতে পারে।

গ্রাম পুলিশ আবজাল হোসেন ও মাহাবুল ইসলাম সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানায়, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাতে হল রুমে থেকে পাহারা দেই কখন যে কি হয় আল্লায় জানে।