‘আমাকে তিন মাস আটকে রেখে একটা পতিতালয়ে বিক্রি করে দেয়’

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক– ‘আমাকে তিন মাস আটকে রাখা হয়। পরে একটা পতিতালয়ে বিক্রি করে দেয়। শরীরে বৈদ্যুতিক শক দিয়েও নির্যাতন করা হতো। একদিন বাড়িতে ফোন করে মাকে সব বলি। এরপর র‍্যাবের সহায়তায় দেশে ফিরে আসি’। এভাবেই নিজের কথাগুলো বলছিল সম্প্রতি সিরিয়া ফেরত হেনস্থার শিকার পটুয়াখালীর এক দরিদ্র মেয়ে। নিজেও এসময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তার সঙ্গে কাঁদলেন উপস্থিত শ্রোতারা। সেই দুর্ভোগের কথা শুনে অনেকেই নিজের চোখ মুছছিলেন।

image-68789-1489238679শনিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এই সেমিনারের আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজ (বায়রা) ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠানোর নামে দালালদের প্রতারণার কথা তুলে ধরেন ফরিদপুরের মহিব উল্লাহ। তার কথা শেষে নিজের এই দুর্বিশহ দিনের কথা তুলে ধরে মেয়েটি। বায়রার সভাপতি বেনজির আহমেদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। র‍্যাব-৩-এর কমান্ডিং কর্মকর্তা তুহিন মোহাম্মদ মাছুম মানব পাচার প্রতিরোধে র‍্যাবের বিভিন্ন কার্যক্রম ও সুপারিশ তুলে ধরেন।

তাদের বক্তব্য শেষ হওয়ার পর বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, আমরা এমন নির্যাতনের আর কোনো ঘটনা শুনতে চাই না। বাংলাদেশের একজন নারী বিদেশে গিয়ে নির্যাতিত হবেন, এটা কোনোভাবেই মানা যায় না। এই ধরনের খবর আমাদের কষ্ট দেয়।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মানব পাচারকারীদের দেশের শত্রু উল্লেখ করে তাদের প্রতিরোধে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এসব বন্ধে আমাদের কাজ করতে হবে। সবাইকে সচেতন হতে হবে।

অনুষ্ঠানে পাচার হয়ে ফিরে আসা ১০ জনকে এক লাখ টাকা করে দেওয়া হয়।