চাঁদনি হত্যার ২ বছরেও তদন্ত শেষ করতে পারেনি সি.আই.ডি

নয়ন দাস, শরীয়তপুর প্রতিনিধি: আলোচিত স্কুল ছাত্রী চাঁদনি হত্যার দুই বছর পূর্ণ হলেও এখন তদন্ত শেষ করতে পারেনি তদন্তকারী সংস্থা সি.আই.ডি।

sasrodh

গত ২০১৫ইং সালের ১১ মার্চ শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার ছোট মূলনা গ্রামের চাঁদনি আক্তার (১৪) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের তিন দিন পর ১৩ মার্চ এলাকার একটি খালের পাড় থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্ত রিপোর্টে বেরিয়ে আসে চাঁদনিকে ধর্ষণ ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। আলোচিত হয়ে ওঠে জাজিরা স্কুল এন্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী চাঁদনি আক্তারের এই হত্যাকান্ডটি। মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও বিচারের দাবী নিয়ে জেগে উঠে শরীয়তপুরবাসী।

নির্মম ভাবে ধর্ষণ ও শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় নিহতের পিতা মোঃ আলী আজগর খাঁ অজ্ঞাতনামা আসামী করে জাজিরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। অভিযান চালিয়ে পুলিশ ৪২ জনকে গ্রেফতার করলেও আদালত থেকে সবাই জামিনে মুক্তি পায়। ৩ মাস পর হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের চিহিৃত করে চাঁদনির বাবা শরীয়তপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মেয়ের বান্ধবী পাখিসহ ৯ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আদালতের নির্দেশ মতে মূল মামলার সাথে সংযুক্ত করে মামলাটির দায়িত্ব দেয় তদন্তকারী সংস্থা সিআইডিকে। কিন্তু এই আলোচিত হত্যাকান্ডের ২ বছরেও তদন্ত শেষ করে আদালতে চার্জশিট জমা দিতে পারেনি সংস্থাটি।

মেয়ে হত্যাকারীদের বিচারের চেয়ে নিহতের বাবা আলী আজগর খাঁ বলেন, আমার মেয়ে হত্যার ২ বছর হয়ে গেছে। এখনও মামলাটি তদন্ত করে চার্জশিট দিতে পারেনি সিআইডি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, কবে আদালতে চার্জশিট দিবে, কবে বিচার পাবো। জড়িতরা প্রভাবশালী হওয়ায় তদন্ত শেষ হচ্ছে না। আমরা বিচার চাই।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (সিআইডি’র) মনির হোসেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, মামলাটির তদন্ত চলছে। তদন্তের স্বার্থে কোন কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে মামলার অগ্রগতি আছে।

আরো কত দিন লাগবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমিতো এই মামলার ৬ মাস ধরে তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছি। তাই আরো সময় লাগতে পারে বলে তিনি জানান।