‘ভূতের ভয়ে’ বাড়ি ছাড়লেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট!

news_picture_44540_brzil


নিউজ ডেস্ক,সময়ের কণ্ঠস্বরঃ

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট মিশেল তেমের ভুতের ভয়ে রাজধানী ব্রাসিলিয়ার নতুন বিলাসবহুল বাড়িটি ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। তিনি জানান, বাড়িটি ছিল ভূতুড়ে পরিবেশের এবং অদ্ভূত ধরনের শব্দ হতো।

চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে ৭৬ বছর বয়সী তেমের সস্ত্রীক তার বিলাসবহুল বাড়ি ‘অ্যালভোরাদা প্যালেস’ ছাড়ার কথা জানান। এ সময় তাদের ছেলেও বাড়ি ছেড়ে গেছেন। অ্যালভোরাদা প্যালেস ছেড়ে তারা একই এলাকায় ভাইস প্রেসিডেন্ট ভবনে উঠেছেন।

শনিবার তেমের ব্রাজিলের সাপ্তাহিক পত্রিকা ভেজা’কে জানান, তিনি এবং তার ৩৩ বছর বয়সী স্ত্রী মারসেলা মনে করেন, বাড়িটি ছিল ভূতুড়ে এবং সেখানে নানা ধরনের ভৌতিক শব্দ হতো।

তিনি জানান, ‘আমি সেখানে অদ্ভুত কিছু অনুভব করতাম, প্রথম রাত থেকেই আমি সেখানে ঘুমাতে পারি নি। বিদ্যুৎ ব্যবস্থাও ভালো কাজ করত না।’

মিশেল তেমের জানান, ‘তার স্ত্রী মারসেলার মাঝ্রেও একই ধরনের অনুভূতি কাজ করত। শুধুমাত্র ছেলে মিশেলজিনহো সেখানে  দৌড়াদৌড়ি করত এবং বাড়িটি পছন্দ করেছিল।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সেখানে কখনো ভালো বোধ করি নি; সেখানে কী ভূত ছিল?’

ব্রাজিলের গ্লোবো নামের একটি পত্রিকা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট তেমেরের স্ত্রী ভূত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একজন পাদ্রী ঠিক করেছিলেন। বিলাসবহুল এ বাড়িতে রয়েছে-একটি পুল, ফুটবল মাঠ, চ্যাপেল, মেডিক্যাল সেন্টার এবং স্প্রলিং লন।

তেমের এখন জাবুরু প্রাসাদে চলে গেছেন; ভাইস প্রেসিডেন্ট থাকার সময় তিনি এ বাড়িতে বসবাস করতেন। গত বছর প্রেসিডেন্ট দিলমা রৌসেফকে ইমপিচ করার পর ভাইস প্রেসিডেন্ট পদ থেকে তিনি স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রেসিডেন্ট পদে উন্নীত হয়েছেন।

ব্রাজিলের বহু সরকারি কর্মকর্তা সম্ভাব্য দুর্নীতির অভিযোগের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন এবং দেশটিতে নানা রকমের রাজনৈতিক সংকট চলছে তখন তিনি বিলাসবহুল বাড়িটি ছাড়লেন।