আমি কোনো চাপ অনুভব করছি নাঃ লিটন

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – দারুণ সম্ভাবনার জানান দিয়েই এসেছিলেন জাতীয় দলে। যদিও দুই বছর আগে অভিষেকের পর জায়গা ধরে রাখতে পারেননি খুব বেশি দিন। প্রায় দেড় বছর পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে আবারো ফেরা হলো উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান লিটন কুমার দাসের। কিন্তু গলে দলকে পরাজয়ের হাত থেকে বাঁচাতে অন্য সবার মতো ব্যর্থ তিনিও।

ঘরোয়া ক্রিকেটে যতোই রান বন্যা উপহার দেন না কেন, জাতীয় দলের জায়গা ধরে রাখতে একটুও কি চাপে নেই লিটন? মাহমুদউল্লাহর মত অভিজ্ঞ ক্রিকেটারকে শততম টেস্টের দল থেকেই বাদ দিয়ে দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। ঠিক তখন লিটন নিজেকে নিয়ে বলছেন, কোনোরকম চাপ অনুভব করছেন না তিনি।

ভারতের বিপক্ষে সিরিজেই দলে ফিরেছিলেন। তবে স্কোয়াডে থাকলেও যায়গা হয়নি মূল একাদশে। শ্রীলঙ্কায় চলতি সিরিজে উইকেটকিপিং ছেড়ে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে যাত্রা শুরু করেছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। উইকেটের পিছনের জায়গাটা তাই পেয়ে গেছেন লিটনই। কিন্তু সর্বশেষ বিসিএলে দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকালেও গলে দুই ইনিংস মিলিয়ে লিটনের রান ৪০। এ অবস্থায় জাতীয় দলে নিজের প্রমাণের চাপ অনুভব করছেন না লিটন?

২২ বছরের লিটন সোমবার কলম্বোতে বললেন, ‘আমি কোনো চাপ অনুভব করছি না। খেলতে কোনো সমস্যাও হচ্ছে না। যে আসরেই হোক না কেন আমি রান করেই আবার দলে ফিরেছি। সেই রান করার আত্মবিশ্বাস তো আমার মধ্যে আছেই।’

liton

কিন্তু সেটা ব্যাট হাতে ঠিকঠাক অনুবাদ করতে হবে তো! ২০১৫ সালের জুনে ঘরের মাঠে ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের সিরিজ দিয়ে জাতীয় দলে অভিষেক লিটনের। এরপর গল টেস্ট দিয়ে মোট চার টেস্টে তার রান মাত্র ১৩৭। ফিফটি পেয়েছেন একটি। ৯ ওয়ানডেতে সংগ্রহ করেছেন সাকুল্যে ১২৪ রান। ৩ টি-টুয়েন্টিতে রানটা ৪৯। এ অবস্থায় আরেক উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান এক রকম লিটনের ঘাড়ে নিশ্বাসই ফেলছেন বলতে হবে। ব্যাট হাতে জাতীয় দলের জার্সিতেও তাই নিজেকে প্রমাণ করাটা জুরুরি লিটনের জন্য।

কলম্বোয় নিজেদের ইতিহাসে শততম টেস্টে অবশ্য ঘুরে দাঁড়ানোরই আশা লিটনের, ‘প্রথম টেস্টের পারফরম্যান্সে আমি সন্তুষ্ট না। আরও ভালো করা উচিত ছিল। সুযোগ থাকার পরও আমার ভুলেই তা হয়নি। পরের টেস্টে আশাকরি নিজেকে প্রমাণ করতে পারবো।’ সেটা করতে না পারলে অনেক কষ্টে জাতীয় দলে ফিরে আবার খুব সহজে ছিটকে পড়ার শঙ্কার মুখে যে পড়তে হবে লিটনকেই!