‘এখন কিন্তু সেই দিন নেই, একটা স্কুলের বাচ্চাও জানে কী করে খেলতে হয়’

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটের পথচলায় শুরুর যোদ্ধা ছিলেন মোহাম্মদ রফিক। ২০০০ সালে টেস্ট মর্যাদা পাওয়া বাংলাদেশের অভিষেক টেস্ট দলের অংশ ছিলেন। বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম ১০০ টি টেস্ট উইকেট পাওয়ার কীর্তিও তাঁর।

মোহাম্মদ রফিক ক্রিকেট ছেড়েছেন অনেকদিন হল। তবে, এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট। আর সেই এগিয়ে যাওয়ার পথে আরেকটা মাইলফলক রচিত হবে আগামী বুধবার। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কলম্বোর পি সারা ওভালে নিজেদের শততম টেস্টে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

নি:সন্দেহে দেশের ক্রিকেটের ইতিহাসে অনেক বড় একটা ঘটনা। সেই টেস্টকে সামনে রেখে স্মৃতিকাতর সাবেক এই বাঁ-হাতি স্পিনার। সাকিবদের পূর্বসূরী বলেন ‘দেশের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট খেলার সুযোগ পাওয়ায়, নিজেকে খুব সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে। ’

দেশের হয়ে ৩৩টি টেস্ট খেলে ১০০টি উইকেট শিকার করেন রফিক। শততম টেস্টকে সামনে রেখে বাংলাদেশের এই এগিয়ে চলাকে মূল্যায়ন করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ টেস্ট খেলা শুরু করেছে, এটা কিন্তু ধারাবাহিক চলতেই থাকবে। দেশের ১০০তম টেস্ট হতে যাচ্ছে, এটা কিন্তু আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। আমিও বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচ খেলেছি। এটা আমার জন্যও সৌভাগ্য। এখন দেখছি ১০০টেস্ট হচ্ছে। ভবিষ্যতে দেখবেন ৫০০ টেস্টও হয়ে গেছে । ’

rafiqueএখন অবধি ৯৯ টি টেস্টট খেলে আটটিতে জয়, ১৫ টিতে ড্র করে। একটা নতুন টেস্ট খেলুড়ে দেশ হিসেবে বাংলাদশে খারাপ করেনি বলেই অভিমত রফিকের। বললেন, ‘আমার মনে হয় একটা নতুন টেস্ট খেলুড়ে দল হিসেবে আমরা তেমন খারাপ খেলিনি। অন্যান্য দেশের ব্যাক-গ্রাউন্ড দেখলে মনে হবে, বাংলাদেশ ওদের চেয়ে ভালো খেলেছে। ’

তবে, এই ভালর কোনো শেষ নেই। মোহাম্মদ রফিক মনে করেন এই অবস্থা থেকেই আরও ভাল করা সম্ভব। তিনি বলেন, ‘এখন কিন্তু সেই দিন নেই। দেশের অধিকাংশ মানুষ খেলা দেখে, খেলা বুঝে। তারা সবাই জানে কি করলে আরো ভালো করা যায়। এখানে কিন্তু আপনি নয়/ছয় দিয়ে বুঝাতে পারবেন না। এখন বাংলাদেশের মানুষ আপনার কাছে জবাব চায়। কেন আপনি ভালো করতে পারেননি। আপনাকে কৈফিয়ত দিতে হবে। একটা স্কুলের বাচ্চাও জানে, কী করে খেলতে হয়। কিভাবে ভালো করতে হয় তারাও বুঝে। ’