দাবী আদায়ের লক্ষ্যে রাস্তা দখল করে হাজারো ছাত্রীর অবরোধ, যানজটে নাকাল রাজধানীর লাখো মানুষ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা:

‘শুধু আজিমপুরের সরকারি গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ নয়, দেশের সব গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজকে একত্র করে একটি ইউনিট করতে হবে’ এমন দাবীতে গতকাল সোমবারের পর আজ মঙ্গলবার দ্বিতীয়দিনের মত রাজধানীর নীলক্ষেত মোড়ে সড়ক অবরোধ করেছেন গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের শিক্ষার্থীরা।

এর আগে একই দাবিতে কলেজটির শিক্ষার্থীরা গত শনিবারও নিউমার্কেট মোড় সড়ক অবরোধ করেছিলেন।

শিক্ষার্থীদের অবরোধের কারণে নিউ মার্কেটের এক নম্বর গেট, আজিমপুর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও মিরপুরের দিকে রাস্তায় যান চলাচল সম্পুর্নরুপে বন্ধ রয়েছে। ফলে মূল রাস্তা সংলগ্ন বিভিন্ন সড়কে সৃষ্টি হয়েছে ব্যপক যানজট।

এর আগে মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) সকালে সাড়ে ১০টার দিকে কলেজ ক্যাম্পাস থেকে প্রায় হাজার খানেক শিক্ষার্থী মিছিল নিয়ে বের হন। পরে পৌনে ১১ টার দিকে তারা মিছিল নিয়ে এসে নীলক্ষেত মোড়ে অবস্থান নেন। এসময় রাস্তায় বসে দাবী আদায়ে নানা শ্লোগান দিতে থাকেন তারা।

মিছিলের পরে রাস্তার উপরে দাঁড়িয়ে সমাবেশ থেকে শিক্ষার্থীরা ঘোষণা দেন, ‘দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত টানান আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা।
শিক্ষার্থীরা আরও জানান, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করবেন। এসময় তারা বলেন, ‘আমাদের ছয় মাস ধরে আশ্বাস দিচ্ছে। এবার ঘোষণা চাই।’home-economics-dhaka-2

অবরোধ চলাকালীন পুলিশকে সর্তক অবস্থানে থাকতে দেখা যায়। নিউমার্কেট থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) আবদুস সালাম জানান, শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে ওই স্থান থেকে সরানোর চেষ্টা চলছে।

home-economics-dhaka

 

উল্লেখ্য, গতবছর শিক্ষার্থীদের একই দাবীতে আন্দোলনের সময় এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে গনমাধ্যমকে জানানো হয়েছিলো, এখনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পৃথক অনুষদ হিসেবে যাত্রা শুরু করতে পারছে না সরকারি গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ। আইনি জটিলতার কারণে চলতি বছর এ দাবি পূরণের কোনো সুযোগ নেই। তবে আইনি জটিলতা কাটিয়ে ভবিষ্যতে ঢাবির পৃথক অনুষদ হিসেবে এ কলেজের যাত্রা শুরু করানো যেতে পারে। মন্ত্রণালয় সূত্র সেসময় আরও জানায়, এ জন্য ছাত্রীদের অন্তত আরো এক বছর অপেক্ষা করতে হবে।

অন্যদিকে, শিক্ষার্থীদের এই দাবির বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সেসময় গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টি মন্ত্রণালয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছে। সময়মতো এ বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

Save