দুর্নীতির অভিযোগের দায় নিয়ে রাবি “ভিসি-প্রোভিসি” নিলেন বিদায়!

নিউজ ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বরঃ কেনাকাটায় অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তের জন্য হাইকোর্টের রুল মাথায় নিয়ে গতকাল সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দীন ও উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান।

কোনো উপাচার্য এবং উপ-উপাচার্য এর আগে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তের জন্য আদালতের রুল মাথায় নিয়ে বিদায় নেননি বলে শিক্ষক-কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৪ বছরের ইতিহাসে এ ধরনের ঘটনা এটাই প্রথম বলে জানা গেছে।

rabi

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত রবিবার অপরাহ্নে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষের কাছে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব হস্তান্তর করেছেন উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য। এরপর সোমবার পূর্বাহ্নে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজ নিজ বিভাগে যোগদান করেছেন বলে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। এনিয়ে গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে।

এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই একজন প্রাক্তন শিক্ষার্থীর আবেদনের শুনানি শেষে হাইকোর্টের একটি দ্বৈত ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন ।  প্রসঙ্গত বিদায়ী প্রশাসনের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির নানা অভিযোগ হাইকোর্টের নির্দেশে দুদকের তদন্ত প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 গত ১৪ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, রেজিস্ট্রার ও কোষাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কেন তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, দুদকের চেয়ারম্যান ও পুলিশের আইজিপিসহ সংশ্লিষ্ট অভিযুক্তদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।