ভাষা সৈনিক মুৎসুদ্দির জীবনী নতুন প্রজন্মকে আদর্শ জীবন গঠনে প্রেরণা জোগাবে

ঢাকাঃ  শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘ভাষা সৈনিক ও  শিক্ষাব্রতী প্রতিভা মুৎসুদ্দি’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রাক্তন উপদেষ্টা সুলতানা কামাল বলেছেন,  ‘ভাষা সৈনিক প্রতিভা মুৎসুদ্দির জীবনী নতুন প্রজন্মকে আদর্শ জীবন গঠনে প্রেরণা জোগাবে।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিভা মুৎসুদ্দি আলোকিত মানুষদের একজন।  তিনি অল্পে তুষ্ট ছিলেন। তার এই আদর্শ নতুন প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে এই জীবনী ভূমিকা রাখবে।’

সুলতানা কামাল আরো বলেন, ‘একটি মানবিক ও আদর্শিক সমাজ বিনির্মাণে  প্রতিভা মুৎসুদ্দির নিভৃতচারী ভূমিকা সবার কাছে তুলে ধরার জন্য লেখক হেনা সুলতানা বইটি লিখে জাতিকে কৃতার্থ করেছেন।’

‘ভাষা সৈনিক ও শিক্ষাব্রতী প্রতিভা  মুৎসুদ্দি’ বইটি সাহিত্যজগতে একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোজন বলে মন্তব্য করেন সুলতানা কামাল।

অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম  বলেন, ‘৫২ সালের ভাষা আন্দোলন ও মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম কর্মী-সংগঠক শিক্ষাব্রতী প্রতিভা মুৎসুদ্দি আমাদের ব্যক্তি ও সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবন  চর্চায় অনন্ত প্রেরণার উৎস। শিক্ষা, সংস্কৃতি, মানবকল্যাণ ও দেশপ্রেমের চেতনায় আলোকিত মানুষ গড়ার  সাধনায় তার নিরন্তর পথচলা বর্তমান প্রজন্মের জন্য অনুকরণীয় আদর্শ।’

ভাষা সৈনিক  প্রতিভা মুৎসুদ্দি তার বক্তব্যে ভাষা সংগ্রামে অংশ নেওয়া, জেল খাটা, শিক্ষা বিস্তারে ভূমিকা নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তির পক্ষ থেকে ভাষা সৈনিক প্রতিভা মুৎসুদ্দিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ও বইটির প্রকাশক  মফিদুল হক, শিক্ষাবিদ শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী, কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পরিচালক শ্রীমতি সাহা,  প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজক চারুদেশ ইভেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চারু উত্তম বড়ুয়া বক্তব্য রাখেন।

‘ভাষা সৈনিক ও শিক্ষাব্রতী প্রতিভা মুৎসুদ্দি’  বই থেকে পাঠ করে শোনান বাচিক শিল্পী ডালিয়া আহমেদ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন স্নিন্ধা বড়ুয়া।