মন্ত্রীর অনুষ্ঠান নিয়ে প্রতিপক্ষের মধ্যে উত্তেজনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৪ উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাড. ছায়েদুল হকের অনুষ্ঠান নিয়ে প্রতিপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়ায় জেলা সদরসহ ৪ উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। সকাল থেকেই উপজেলা গুলোতে মাইকিং করা হচ্ছে।

শনিবার মধ্যরাতে বিজয়নগর, সদর, আশুগঞ্জ ও সরাইল উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেন স্ব-স্ব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় বিজয়নগরে ২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত হয়।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নবীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মন্ত্রী ছায়েদুল হকের অনুষ্ঠান নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করায় ৪ উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে স্ব-স্ব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা সব ধরনের সভাসমাবেশ নিষিদ্ধ করে রবিবার সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেছেন।

উল্লেখ্য, রবিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে নবনির্মিত উপজেলা প্রাণিসম্পদ হাসপাতাল উদ্বোধন ও সুধি সমাবেশে যোগ দেয়ার কথা রয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাড. ছায়েদুল হকের।

তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে আমন্ত্রণ না জানানোয় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে বিজয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. তানভীর ভূঁইয়া ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া মন্ত্রী ছায়েদুল হকের অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দেন।

পরে এদিন বিকেলেই বিজয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগ সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ঘোষণা দেন। এরপর শুক্রবার দুপুরে বিজয়নগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে মারধর ও কার্যালয় ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা।