বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতি হতে পারে, তদন্ত চলছে: পানিসম্পদ মন্ত্রী

সময়ের কণ্ঠস্বর: পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় যে বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছিল, সেটির উচ্চতা ছিল সাড়ে ৭ মিটার। বর্তমানে ওই এলাকায় পানির উচ্চতা ৮.১ মিটার। একারণে বাঁধগুলো দ্রুত ভেঙে যায়। পাশাপাশি বাঁধ ভাঙার পেছনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব রয়েছে।

আজ রোববার সচিবালয়ে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, হাওর এলাকায় বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতি রয়েছে কিনা সে বিষয়ে তদন্ত চলছে। পানি নেমে গেলে পুনরায় তদন্ত হবে। সেসময় বোঝা যাবে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান কতটুকু কাজ করেছে।

তিনি আরও বলেন, বাঁধ নির্মাণে দুর্নীতি হতে পারে। তবে জলবায়ু পরিবর্তন ও পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিপর্যয় নেমে আসে।

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, এই মুহুর্তে আমাদের কিছু করার নেই। এই ক্ষতি থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। যাতে ভবিৎষতে আমরা উপযুক্ত বাঁধ নির্মাণ করতে পারি।

এ সময় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম বীরপ্রতীক, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মো. জাহাঙ্গীর কবীর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।