ছয়জন হজযাত্রীর জন্য একটি কক্ষ

৬:১১ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, মে ১১, ২০১৭ ইসলাম, স্পট লাইট

ঢাকাঃ  আসন্ন আগামী হজ মৌসুমে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের জন্য মক্কা ও মদিনায় বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া করতে ৯ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।  একই সঙ্গে কমিটিকে মক্কায় পাহাড়ের উপর বাড়ি ভাড়া করা যাবে না বলে সুস্পষ্ট নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।  এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন আগামী সপ্তাহের শেষের দিকে সৌদি আরব সফর করে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন কমিটির সদস্যরা।

উক্ত কমিটিতে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব হাফিজ উদ্দিনকে আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ হজ অফিস জেদ্দা,  সৌদি আরবের কনসালকে (হজ) সদস্য সচিব করা হয়েছে। কমিটিতে অন্যদের মধ্যে রয়েছেন-বাংলাদেশ হ্জ অফিস জেদ্দা, সৌদি আরবের কাউন্সিলর (হজ) মাকসুদুর রহমান, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব শরাফত জামান, ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সহকারী একান্ত সচিব শফিকুল ইসলাম শফিক, কনসাল জেনারেল, কনসুলেট জেনারেল অব বাংলাদেশ, জেদ্দা কর্তৃক মনোনীত দুইজন প্রতিনিধি, রাষ্ট্রদূতের একজন প্রতিনিধি, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব শহীদুল্লাহ তালুকদার ও ধর্মমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মো. আবু সাইদ প্রমুখ।

এই কমিটির কার্যপরিধিতে বলা হয়েছে, প্রতি চার থেকে ছয়জন হজযাত্রীর জন্য সংযুক্ত টয়লেটসহ একটি কক্ষ অনুপাতে বাড়ি বা হোটেল ভাড়া করবে। মক্কায় পাহাড়ের উপর বাড়ি ভাড়া করা যাবে না। সমতল ভূমিতে মিসফালাহ এলাকার ইব্রাহিম খলিল রোডে কিংবা এ রকম সমতল এলাকা হারেমে যাতায়াত সহজ- এমন এলাকায় বাড়ি বা হোটেলকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনায় আনতে হবে।

জানা গেছে, হজযাত্রীদের সুবিধার্থে বিশেষ করে বয়স্কদের জন্য সহজে যাতায়াত ও চলাফেরার কথা চিন্তা করে আসন্ন হজ মওসুমে মক্কায় পাহাড়ের উপর বাড়ি ভাড়া করা যাবে না বলে সুস্পষ্ট নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। বাড়ি ভাড়া ও সংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করতে কমিটির কার্যপরিধিও নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া মক্কা ও মদিনার হারেম এলাকার কাছাকাছি সরকারঘোষিত হজ প্যাকেজে বর্ণিত দূরত্ব অনুসারে মক্কা ও মদিনায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক বাড়ি বা হোটেল ভাড়ার ব্যবস্থা করবে কমিটি। প্রকৃত মালিকের বাড়ি বা হোটেলগুলো সরেজমিন পরিদর্শন করে নির্ধারিত দূরত্ব ও সমতল এলাকায় উত্তম সুযোগ সমৃদ্ধ চিহ্নিত ও আলোচনা করে ভাড়া করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।