লিবিয়ায় বিমান ঘাঁটিতে দুপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ৬০ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে একটি বিমান ঘাঁটিতে হামলার নিহত হয়েছেন অন্তত ৬০ জন। সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর দুপক্ষের সংঘর্ষে হতাহতের এ ঘটনা ঘটেছে। নিহতদের অধিকাংশই জেনারেল খলিফা হাফতারের নেতৃত্বাধীন অংশের যোদ্ধা। রয়েছেন বেসামরিক মানুষও।

২০১১ সালে লিবীয় নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির পতন ও মৃত্যুর পর দেশটির নিয়ন্ত্রণ কার্যত স্বশস্ত্র বিদ্রোহীদের হাতে চলে যায়। দেশটির দুভাগের নিয়ন্ত্রণ নেয় হাফতারের নেতৃত্বাধীন লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মি (এলএনএ) এবং ওয়েস্টার্ন লিবিয়া। পরের অংশকে সমর্থন দিচ্ছে লিবিয়ার আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকার।

লিবিয়ার মিসরাতা শহরের ব্রাক এল-সাতি বিমানঘাঁটিটি দখলে নিতে দুপক্ষের তীব্র লড়াই হয়। এসময় সেখানে এলএনএর যোদ্ধারা অবস্থান করছিল। লড়াই শেষে পুরো বিমান ঘাঁটিটি দখলে নেয়া হয়। হত্যা করা হয় ভেতরে থাকা যোদ্ধাদের।

শহরের মেয়র ইব্রাহিম জাবি বলেন, ‘ভেতরে অনেক যোদ্ধাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। হামলার সময় সংশ্লিষ্ট এলাকায় যুদ্ধবিমান উড়তে দেখা গেছে।’

স্থানীয় হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, এখন পর্যন্ত অন্তত ৬০ জনের মরদেহ হাসপাতালে আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে বেসামরিক মানুষও আছেন। তারা বিমান ঘাঁটিতে কাজ করতেন।

গত সপ্তাহে জেনারেল হাফতার লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত প্রধানমন্ত্রী ফায়েজ আল-সারাজের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এর মধ্যে দিয়ে দেশটিতে রাজনৈতিক ও সামরিক পক্ষগুলোর মধ্যে সমঝোতার আভাস মিলছে। যার মধ্য দিয়ে এক সময়ের সমৃদ্ধ এ দেশটিতে শান্তি আসবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।