রাতগভীরে প্রেমিকের সাথে আটক হয়ে গলায় ফাঁস দিলেন প্রবাসীর স্ত্রী !

তজুমদ্দিনে পরকীয়ায় ধরা পরে প্রবাসির স্ত্রীর আত্মহত্যা!  প্রেমিক আটক।

ভোলা সংবাদদাতা, সাদির হোসেন রাহিম, সময়ের কণ্ঠস্বর-

সৌদি আরব প্রবাসি পরেশ চন্দ্র দাসের স্ত্রীর সাথে  একই  এলাকার শান্তিরঞ্জণ পালের ছেলে দ্বীপংকর পালের (৩২) দীর্ঘদিনের পরকীয়া সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন ছিলো আগে থেকেই ।

এরই জের ধরে গতকাল ১৮ই মে রাত প্রায় দেড়টার সময়  মোবাইলে কথা বলে প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে প্রবেশ করে দ্বীপংকর  নামের  ঐ যুবক । এক পর্যায়ে এলাকাবাসী টের পেয়ে বাড়িটি ঘিরে ফেলে। এসময় প্রেমিক  দ্বীপংকরকে হাতে নাতে ধরে ফেলে বেধে রাখে এলাকাবাসি।

এ ঘটনায় ঐ রাতেই ‘লোকলজ্জার’ ভয়ে  ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে গৃহবধু।   নিহত গৃহবধুর নাম জিকু রাণী দাস (৩০)। তিনি  ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার চাদঁপুর ৮নং ওয়ার্ডের উত্তর কালাশা এলাকার বাসিন্দা উমেষ চন্দ্র দাসের মেয়ে ।

পরে জিকু রাণীর মায়ের চিৎকারে লোকজন এসে রুমের দরজা ভেঙ্গে দেখে জিকু রাণী আত্মহত্যা করেছে।

পরবর্তীতে  খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ প্রেমিক  দ্বীপংকর কে আটক করে এবং নিহত গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা মর্গে প্রেরন করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, স্বামী বিদেশ থাকার কারনে জিকু রাণী দাস চরফ্যাশনে তার স্বামীর বাড়িতে না থেকে তার ছয় বছর বয়সী কণ্যা সন্তান পরশী কে নিয়ে তজুমদ্দিনে বাবা মা`র সাথে বাপের বাড়িতেই থাকতেন। নিহত জিকু রাণীর স্বামী ২ বছর যাবত বিদেশ থাকায় ইলেকট্রনিক ব্যাবসায়ী ও শায়েস্তাকান্দি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দ্বীপকংরের সাথে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম শাহিন মন্ডল সময়ের কণ্ঠস্বরকে  জানান, এ ঘটনায় তজুমদ্দিন থানায় একটি মামলা
প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আমরা দ্বীপংকর নামে একজন কে গ্রেপ্তার করেছি। এবং নিহতের ময়না তদন্তের জন্য লাশ ভোলা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।