কলাপাড়ায় শাশুড়ীর হামলায় মেয়ে জামাই গুরতর আহত, বসত বাড়ীতে ভাংচুর

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

শাশুড়ীর সাথে কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়েছে মেয়ে জামাইয়ের বসত বাড়ীর সকল অসবাপত্র। কুপিয়ে গুরতর জখম করা হয়েছে মেয়ে জামাই সাগর খানকে (২২)। রাতেই গুরতর আহত সাগরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাত সাড়ে এগারটায় কলাপাড়া পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ডের নাচনা পাড়ায়।

আহত সাগরের বাবা বাদল খান ও প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, সাগরের সাথে তার শাশুড়ী বাসার সামনে দাড়িয়ে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উত্তেজিত শাশুড়ি জয়নবের নেতৃত্বে সরোয়ার (৩৫), হৃদয় (১৮) এবং জয়নবের মেয়ে জামাই নেছারসহ প্রায় ৮/১০জন সংঘবব্ধ হয়ে সাগরের উপড় হামলা চালায়। এসময সাগর বাসার দোতালায় ওঠে আত্মরক্ষার চেস্টা করে। হামলাকারীরা বাসায় প্রবেশ করে ব্যাপক ভাংচুরসহ সাগরকে ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। ওই রাতেই তাকে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে এলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠায়। রাতে থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থ পরিদর্শন করেছে। এ ব্যাপরে কলাপাড়া থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বাদল খান আরো জানান, তাকেসহ তার পরিবারকে হয়রানী করার জন্য পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতে মামলা দায়ের করেছেন জয়নব। যা বর্তমানে চাকামউয়া ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে তদন্তের জন্য রয়েছে। কিন্তু মামলা তুলে ফয়সালা করার জন্য জয়নব তার কাছে টাকা দাবী করছেন বলে তিনি জানান।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিএম শাহনেওয়াজ সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।