বঙ্গবন্ধুর খুনী মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত পেতে নিউইয়র্কে সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের কর্মসূচি

প্রবাসের কথা ডেস্ক, সময়ের কণ্ঠস্বর: আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আলবদর আশরাফুজ্জামান খান এবং ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বার এবং বঙ্গবন্ধুর খুনী মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত রাশেদ চৌধুরীকে অবিলম্বে বাংলাদেশের কাছে ফিরিয়ে দিতে মার্কিন প্রশাসনের কাছে দাবি জানাতে নিউইয়র্কে আগস্টের মাঝামাঝি একটি বড় ধরনের কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১ যুক্তরাষ্ট্র শাখা।

স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে সংগঠনের কার্যকরী কমিটির এই সভায় এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

আলবদর কমান্ডার হিসেবে বুদ্ধিজীবী হত্যার নায়ক আশরাফুজ্জামান খান নিউইয়র্কে এবং রাজাকার আব্দুল জব্বার বসবাস করছে ফ্লোরিডায়। অন্যদিকে বঙ্গবন্ধুর খুনী রাশেদ চৌধুরীকে মাঝেমধ্যেই দেখা যায় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়। একাত্তরে আলবদর বাহিনীর আরো কয়েকজন সদস্য নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, ফ্লোরিডা, মিশিগান ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করছে।

এদের কেউ কেউ মিডিয়ার কর্মীর আবরণ গায়ে ঝুলিয়ে বিভিন্ন সভা-সমাবেশেও অংশ নিচ্ছে বলে সভায় উল্লেখ করা হয়। তারা মাঝেমধ্যেই কথিত মিডিয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশে চলমান আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে প্রশ্নবিদ্ধ করার সংঘবদ্ধ প্রচারণাতেও লিপ্ত হচ্ছে। কখনো কখনো এরা মার্কিন কংগ্রেস এবং স্টেট ডিপার্টমেন্টকেও লাগাতার মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলেও এ সভায় অভিযোগ করা হয়। ঘৃণ্য তৎপরতায় লিপ্তদের চিহ্নিত করতে সকলে একযোগে কাজ করার সংকল্প ব্যক্ত করেন সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের নেতৃবৃন্দ।

সভায় একইসাথে আরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে, ‘বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ফিরিয়ে নিতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান কর্মসূচির বিরুদ্ধে এই প্রবাসে যদি কোন ষড়যন্ত্রের আভাস পাওয়া যায়, তাহলে ঐ ষড়যন্ত্রকারীদের রুখে দিতে সকল প্রবাসীকে ঐক্যবদ্ধ করতে সকলেই সচেষ্ট থাকবেন এবং নিজ নিজ অবস্থান থেকে মার্কিন কংগ্রেসের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখবেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ।

নির্বাহী সদস্য মুক্তিযোদ্ধা লাবলু আনসারের সঞ্চালনায় এ সভায় বক্তব্য দেন সংগঠনের সহ-সভাপতি হারুন ভূঁইয়া এবং একাত্তরের কণ্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায়, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল বারী, যুগ্ম সম্পাদক মো. আব্দুল কাদের মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরল আমিন বাবু, প্রচার সম্পাদক শুভ রায়, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কণ্ঠযোদ্ধা শহীদ হাসান, নারীবিষয়ক সম্পাদক সবিতা দাস, নির্বাহী সদস্য শহীদুল ইসলাম, আশরাফ উদ্দিন খান লিটন এবং নান্টু মিয়া।

সভা থেকে প্রবাসীদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান রাখা হয়, ‘বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়ন আর কল্যাণে সাধ্যমত অবদান রাখার জন্যে। একইসঙ্গে প্রবাস প্রজন্মকেও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সম্পৃক্ত রাখতে নানা কর্মসূচির আলোকপাত করা হয়।’

সেপ্টেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতা হিসেবে যোগদান করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সফরের সময়ে নেওয়া সমস্ত কর্মসূচিতে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম অংশ নেবে বলেও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সভায় মুুক্তিযুদ্ধে ৯ নম্বর সেক্টরের সাব-সেক্টর কমান্ডার মেজর জিয়াউদ্দিনের মৃত্যুতে গভীর শোক এবং তার বিদেহী আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনায় সকলে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করেন।