‘বাইরের কারো উসকানিতে কোনো রকম দুর্ঘটনা যেন না ঘটে’

সময়ের কণ্ঠস্বর– শ্রমিকদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিষ্ঠান থেকে আপনি জীবন জীবিকার সুযোগ পাচ্ছেন, অর্থ উপার্জন করছেন। সেই প্রতিষ্ঠান যেন ভালোভাবে চলতে পারে অন্য কারও বা বাইরের কারো উসকানিতে কোনো রকম দুর্ঘটনা যেন সেখানে না ঘটে। সেটা বিশেষভাবে দেখতে হবে সবাইকে।

রোববার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে গঠিত কেন্দ্রীয় তহবিল (আরএমজি) থেকে তৈরি পোশাক শিল্পে মৃত্যু বা পঙ্গুত্বজনিত কারণে শ্রমিকদের মাঝে ক্ষতিপূরণের চেক প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় মালিক-শ্রমিকদের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রী।

মালিকদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মালিকদের প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে আপনারা ব্যবসা করে লাভ নেবেন। সেই সঙ্গে আপনারা শ্রমিকদের কল্যাণে বিশেষ দৃষ্টি দিয়েছেন এটা অব্যাহত রাখতে হবে। এরাই তো আপনাদের কারখানা চালু রাখেন। আপনারা যা কিছু উপার্জন করে এই শ্রমিকদের শ্রমের বিনিময়ে।

শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আমার রাজনীতি বড় লোককে বড় লোক বানানোর জন্য না, গরিব মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য। আমার রাজনীতি এদেশের কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি মানুষের জন্য।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের রফতানি পণ্য বাড়াতে হবে। কোন দেশে কী ধরণের চাহিদা সেটা খুঁজে বের করতে হবে। ভবিষ্যতে কোন দেশে কত রফতানি করতে পারি সেটা বের করতে হবে। অথবা আমরা নিজের দেশে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে গঠিত কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে মৃত্যু ও পঙ্গুত্বজনিত কারণে ২৩৪ জন শ্রমিককে চেক দেওয়া হয়।

আরআই