কালীগঞ্জ বিদ্যুৎ অফিসে দুর্নীতির অভিযোগ: অফিসের সহকারী মান্নান অবরুদ্ধ

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:  বিদ্যুৎ সংযোগ ও ট্রান্সমিটার দেয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ বিদ্যুৎ অফিসের অফিস সহকারী আব্দুল মান্নান এর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত মান্নানের বে-পরোয়া দুর্নীতির কারনে বিদ্যুতের কতিপয় গ্রাহক চরম হয়রানীসহ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।
রোববার (২৭ আগষ্ট) সকাল ১১ টায় অফিস সহকারী মান্নানকে ভূক্তভুগী গ্রাহকরা তাদের টাকা ফেরত চাইতে এসে তাকে অফিস কক্ষেই অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে নির্বাহী প্রকৌশলী খন্দকার নাজমুল হাসান এর কার্যালয়ে এসে গ্রাহকরা তাদের অভিযোগ জানান। এসময় তিনি অভিযুক্ত মান্নানকে ডেকে নেন।
উপজেলার চন্দ্রপুর গ্রামের শরিফুল ইসলাম জানান, তিনি তার কাছে ৮ হাজার টাকা পান। বিদ্যুৎ সংযোগ এর পাইয়ে দিতে টাকা নিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়নি।
বৈরাতী এলাকার লুৎফর রহমান জানান, কালীগঞ্জ বাজারের আসাদুলের সারের দোকানে তার হাতে ১৫ হাজার টাকা দিয়েছি। তিনি আমার বিদ্যুৎ সংযোগ করে দেয়নি।
উত্তর বত্রিশ হাজারী গ্রামের লাভলু মাষ্টার জানান, ট্রান্সমিটার ও মিল সংযোগ পাইতে তাকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা দেই। পরে মান্নান ১লাখ বত্রিশ হাজার টাকার কথা স্বিকার করেন।
গোড়ল এলাকার ফয়েজ উদ্দিন জানান, ট্রান্সমিটার পেতে ৮০ হাজার টাকা দিয়েছি। আমাকে ট্রান্সমিটার দেয়নি।
পাচমাথা গ্রামের ইছলাম উদ্দিনের স্ত্রী ছমিরোন নেছা জানান, আমি তাকে ধর্মভাই বানিয়েছি, আমার সেচ পাম্প এর বিল পরিশোধ করার জন্য ৪০ হাজার টাকা দিয়েছি। কিন্তু তিনি বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ না করায় আমার স্বামীর বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ বিভাগ মামলা দেয়। এ মামলায় আমার স্বামী ১৩ দিন হাজত খেটেছে। জামিনে এসে হার্ডএট্যাক হয়েছে। আল্লাহ্ এর বিচার করিবে।
পরে উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ উপস্থিত হয়ে বিষয়টি শুনে আগামী দেড় মাসের মধ্যে ভুক্তভোগি গ্রাহকদের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য মান্নানকে নির্দেশ দেন।