মধুরেণ প্রতিশোধ! যশোরে দুই প্রতিবেশি যুবকের ‘বৌ বদলের’ অদ্ভুত ঘটনায় এলাকাজুড়ে ব্যপক চাঞ্চল্য

যশোর প্রতিনিধি, সময়ের কণ্ঠস্বর-
একেই বুঝি বলে ‘মধুরেণ প্রতিশোধ!’। প্রতিবেশি দুই যুবকের একজন প্রবাসী অন্যজন নিজ এলাকায় দুই সন্তানের জনক। ঘটনাস্থল- যশোরের মণিরামপুর উপজেলার লাউড়ি গ্রাম। এই গ্রামেই ঘটেছে ব্যতিক্রমি এক ঘটনা। প্রথম যুবক পরকীয়ায় মত্ত হয়ে প্রবাসীর বৌকে নিয়ে সংসার পেতেছেন অন্যদিকে, প্রবাসী বিতীয় যুবক দেশে ফিরে ‘প্রতিশোধ নিতে পালিয়ে যাওয়া বৌয়ের বর্তমান স্বামীর বৌকে করেছেন বিয়ে!
এভাবেই দুই যুবকের বউ বদলের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ঘটনা সুত্রে প্রকাশ, মালয়েশিয়া প্রবাসী ইসলাম হোসেন নামের এক যুবকের স্ত্রী একই গ্রামের অপর এক বিবাহিত যুবক মাহবুবের হাত ধরে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করার ঘটনার পর অপর মালয়েশিয়া প্রবাসী দেশে ফিরে তার স্ত্রীর সাথে পালিয়ে যাওয়া যুবকের স্ত্রীকে বিয়ে করেছেন।

স্থানীয় শ্যামকুড় ইউপি সদস্য মুজিবর রহমান সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, উপজেলার লাউড়ী গ্রামের মোজাহার মোড়লের ছেলে ইসলাম হোসেনের (২৮) বিয়ের পাঁচ বছর পর সংসারের স্বচ্ছলতা আনার জন্য বছর তিনেক আগে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান। এরপর এক মাস আগে তিনি দেশে আসেন।

এদিকে, ইসলাম দেশে আসার ১৫ দিন আগেই তার স্ত্রী একই গ্রামের মৃত আশরাফ আলী সানার ছেলে দুই সন্তানের জনক মাহবুব হোসেনের সাথে পরকীয়া সম্পর্কের সুত্রধরে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করেন।

বাসায় ফেরার পর সব শুনে হতবাক ইসলাম তার স্ত্রীকে বাড়িতে ফেরত আনতে মাহবুবের বাড়িতে যান। অনেক চেষ্টা দেন দরবার করেও ফেরাতে পারেনা স্ত্রীকে। ওদিকে মাহবুব এর স্ত্রীও তার স্বামীর আকস্মিক বিয়ের ঘটনায় ফুঁসছিলেন। মাহবুবের স্ত্রী তার স্বামীর অনৈতিক সিদ্ধান্তে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য ইসলামের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেণ । ক্ষোভ অভিমান সব মিলিয়ে দুজনের মধ্যে তৈরি হয় ‘সমঝোতা’ । এরপর ১০ দিন আগে মাহবুবের স্ত্রী তার দুই সন্তান রেখে ইসলামের হাত ধরে পালিয়ে যায়। এরপর তারা বিয়ে করে সংসার পাতেন।

বর্তমান উভয় যুবক তাদের স্ত্রীদেরকে নিয়ে ঘর-সংসার করছেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মাহবুব জানান, ইসলামের ছেলে ও তার মেয়ে একই স্কুলে পড়ার সুবাদে দুই পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে উঠে। দুই পরিবারের সদস্যরা একে অপরের বাড়িতে যাতায়াত করতো। এক পর্যায়ে তাদের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তারপর তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। নিজের স্ত্রী পালিয়ে যাওয়া নিয়ে তার কোন ক্ষোভ নেই। বর্তমানেনতুন বউ (ইসলামের সাবেক স্ত্রী)কে সাথে নিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করছেন তিনি ।

অন্যদিকে, ইসলাম হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে। তবে ইসলামের ঘনিষ্ঠজনেরা জানিয়েছেন, ইসলামের আর কোন ক্ষোভ নেই। স্ত্রীর পালিয়ে যাওয়া নিয়ে প্রথম দিকে হতাশা থাকলেও এখন মাহবুবের বৌকে নিজের স্ত্রী হিসেবে ঘরে রেখে মানসিক শান্তিতেই আছেন তিনি।

এমন আরও একটি সংবাদ

সাম্প্রতিককালে এমনি একটি ঘটনা বেশ চাঞ্চল্যের সৃস্টি করেছিলো । গত মাসেই ৩০ জুলাই ২০১৭ সিরাজগঞ্জের কামারখন্দের বাঁশবাড়িয়া গ্রামে পরকীয়া প্রেমে একে অপরের বউ বদলের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী সেলিমের স্ত্রী সোমা খাতুনের সঙ্গে একই গ্রামের পরাণ সেখের ছেলে সোহেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গভীর প্রেমের টানে সোমা তার দুই বছরের ছেলেকে তার দাদীর কাছে রেখে সোহেলের সঙ্গে পালিয়ে যায়। অপর দিকে সোহেলের ঘরে স্ত্রী ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে।

সোহেলের স্ত্রী তার স্বামীর অনৈতিক কাজের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত সোমার স্বামীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত ৭ জুলাই পরিবারের সম্মতিক্রমে মোবাইলের মাধ্যমে সোহেলের স্ত্রীর সঙ্গে সেলিমের বিবাহ হয় বলে জানা যায়।

স্থানীয়রা জানান, সেলিমের বউ সোহেলের সঙ্গে পাঁচ মাস হল চলে গেছে। আর সোহেলের বউয়ের সঙ্গে সেলিমের বিয়ে হয়েছে কিছু দিন হল। সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেই তাদের বিয়ে হয়েছে।

এদিকে একে অপরের বউ বদল করার রহস্য উভয় পরিবারের মধ্য গোপন রাখার চেষ্টা চলছিলো । যার কারণে এ ব্যাপারে উভয় পরিবারের লোকজন কথা বলতে নারাজ। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় ।