নান্দাইলে ঈদ উপলক্ষ্যে আগস্ট মাসে ১৮০৯ টি পরিবারের মধ্যে বিদ্যুতায়ন

শামছুজ্জামান বাবুল, নান্দাইল প্রতিনিধি: “শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ” বাস্তবায়নের লক্ষে ময়মনসিংহের নান্দাইলে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষ্যে আগস্ট মাসে পৃথক ১২ টি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ১৮০৯ টি পরিবারকে বিদ্যুতের আলোতে আলোকিত করলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন। এতে মোট ৩৮.৫ কিলোমিটার নতুন বিদ্যুত লাইন নির্মাণ করতে সরকারের ব্যয় হয়েছে প্রায় ৫ কোটি ৭৩ লাখ টাকা।

এর মধ্যে যে সব এলাকায় বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে, গত ১২ আগস্ট ২০১৭ শেরপুর ইউনিয়নের রাজাবাড়িয়া গ্রামে ৬৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪.৫ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১৯২ টি পরিবার। গত ১৯ আগস্ট জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের বারঘরিয়া ও জোয়লভাঙ্গা গ্রামে ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৫.৫ কিলোমিটার লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১৬২ টি পরিবার, একই ইউনিয়নের পূর্ব দেউলডাংরা গ্রামে ৫৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪.৫ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১৭৮ টি পরিবার। সিংরইল ইউনিয়নের কচুরী কোনাপাড়া গ্রামে ২৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ১.৫ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ৩৯ টি পরিবার। গত ২০ আগস্ট শেরপুর ইউনিয়নের কোনাপাচরুখী গ্রামে ৪৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩.৫ কিলোমিটার লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১৯৭ টি পরিবার। গত ২১ আগস্ট জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের কিসমত বনগ্রাম গ্রামে ২১ লাখ টাকা ব্যয়ে ১.৫ কিলোমিটার লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১১১ টি পরিবার।

খারুয়া ইউনিয়নের বনগ্রাম গ্রামে ৩১ লাখ টাকা ব্যয়ে ২.৫ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১০০ টি পরিবার। গত ২৪ আগস্ট মুশুলী ইউনিয়নের শুভখিলা নগদাপাড়া ও চরবোয়াইল গ্রামে ২১ লাখ, ৪১ লাখ ও ২১ লাখ টাকা ব্যয়ে ১ কিলোমিটার, ২ কিলোমিটার ও ১ কিলোমিটার লাইন নির্মানের মাধ্যমে ৬৭, ৮২ ও ৪৭ টি পরিবার। গত ২৬ আগস্ট গাঙ্গাইল ইউনিয়নের শুরাশ্রম, গয়েশপুর ও শ্রীরামপুর গ্রামে এক কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে ৮ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ৪৯৭ টি পরিবারের মধ্যে বিদ্যুতায়ন করেন সাংসদ আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন।

বিভিন্ন বিদ্যুৎ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আঃ মালেক চৌধুরী স্বপন, পৌর মেয়র রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া, কিশোরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মনির হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য আবু বক্কর সিদ্দিক বাহার, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম আজিজুর রহমান সরকার, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানগণ, নান্দাইল উপজেলা মহিলালীগের আহবায়িকা লুৎফুন্নাহার লাকী সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও মান্যগণ্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাংসদ তুহিন বলেন, নান্দাইলে আমি এমপি নির্বাচিত হওয়ার পূর্বে অর্থাৎ ২০১৪ইং সালের ৫ জানুয়ারীর পূর্বে প্রাণের নান্দাইলের ৩৮ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় ছিল। বর্তমানে নান্দাইলে ৮৬ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে। বিভিন্ন গ্রামে বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ চলমান। আশা করি ২০১৭ইং সালে কিংবা ২০১৮ইং সালের শুরুতেই নান্দাইলের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌছে দিতে লাইন নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হবে। ইতিমধ্যে প্রাণের নান্দাইলে শতভাগ বিদ্যুৎ নিশ্চিতের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় আরও ৩০০ কিলোমিটার নতুন লাইন নির্মাণের বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে।