ধর্ষণে অভিযুক্ত রাম রহিমকে শাস্তি দেওয়ার ‘ফল’ ভুগছেন বিচারক ও তাঁর পরিবার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কোনও রকম প্ররোচনা বা বিতর্কের উর্ধ্বে ওঠে রায় দিয়েছিলেন তিনি। ধর্ষককে উচিত শাস্তি দিয়েছেন তিনি। সিবিআই-এর বিশেষ আদালতের বিচারক জগদীপ সিংহ স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিমকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। কিন্তু তারপর থেকেই তাঁর জীবনের শান্তি কিছুটা হলেও বিঘ্নিত হয়েছে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্রে জানা গিয়েছে, নিরাপত্তার খাতিরে তাঁকে ‘জেড প্লাস’ নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু কেন এমনটা হল?

সাজা ঘোষণার পর থেকেই বিচারক জগদীপ সিংহ ও তাঁর পরিবার একের পরে এক হুমকি ফোন পাচ্ছেন। মাঝ রাতে ফোন আসছে একাধিকবার। অভিযোগ, প্রাণনাশেরও হুমকি নাকি দেওয়া হচ্ছে। উত্ত্যক্ত করা হচ্ছে বিচারকের পরিবারকেও। এর জেরেই সরকার বিচারকের নিরাপত্তা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রাম রহিমের নিজের আশ্রমেরই দুই সাধ্বীকে ধর্ষণের অভিযোগে ১০ বছর করে অর্থাৎ মোট ২০ বছর কারাদণ্ড ঘোষণা করেছেন জগদীপ সিংহ। সঙ্গে ১৫ লক্ষ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে বাবা রাম রহিমকে। এই টাকা ধর্ষিতা দুই মহিলাকে দেওয়া হবে।

গত শুক্রবার ডেরা সচ্চা সওদার প্রধান রাম রহিমের মামলার রায় ঘোষণার পরেই চণ্ডীগড়, হরিয়ানা ও দিল্লির কিছু অংশে হিংসাত্মক হয়ে ওঠেন ডেরার শিষ্য-সমর্থকরা। পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় প্রায় ৩৮ জনের। আর এই ঘটনার পরেই বেশি ঝুঁকি না নিয়ে জেলেই বিচারককে নিয়ে যাওয়া হয়। রাম রহিমের ডেরার এই ভক্তরাই হুমকি বিচারক ও তাঁর পরিবারকে হুমকি ফোন করছে বলে মনে করা হচ্ছে।