চলতি মাসেই সরকারি চাকরিতে যোগ দিচ্ছেন সিদ্দিকুর

সময়ের কণ্ঠস্বর– পুলিশের টিয়ারশেলে দৃষ্টিশক্তি হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান সরকারি চাকরির নিয়োগপত্র পেতে যাচ্ছেন। রাজধানীর শাহবাগে আন্দোলনের সময় খুব কাছ থেকে টিয়ারশেল নিক্ষেপে তিনি দৃষ্টিশক্তি হারান।

বাংলাদেশের একমাত্র ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এসেনশিয়াল ড্রাগ কোম্পানি লিমিটেডে (ইডিসিএল) তার চাকরি হয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি সিদ্দিকুর রহমান নিজেই নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত ২৮ আগস্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম তাকে ফোন করে খোঁজ-খবর নেন। এ সময় মন্ত্রী ইডিসিএলে তার চাকরির বিষয়টি নিশ্চিত করেন। প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যানের সঙ্গে তাকে যোগাযোগ করারও পরামর্শ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সিদ্দিকুর বলেন, আমি ইডিসিএলে’র চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি আমার বায়োডাটা নিয়ে অফিসে যেতে বলেন। এরপর সেখানে গেলে আমাকে চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত টেলিফোন অপারেটর পদে নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানান।

পাশাপাশি আমার পড়ালেখা চালিয়ে যেতে প্রতিষ্ঠান থেকে সকল সহযোগিতা করারও আশ্বাস দেয়া হয়েছে। চলতি মাসের ১৪ তারিখ যোগদানপত্র দেয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সিদ্দিকুর আরো বলেন, আমার একা চলাফেরা করা সম্ভব হয় না। তাই সরকারিভাবে আমাকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করলে আমার স্বাভাবিক জীবন-যাপনে ফিরতে সহজ হবে।

চাকরির বিষয়টি নিয়ে সিদ্দিকুরের পরিবারের মধ্যে কিছুটা আনন্দ বয়ে এনেছে। সন্তানের সরকারি চাকরিতে সুখের ঢেকুর তুলেছেন তার মা সুলেখা খাতুন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে আন্দোলন করছিলেন।

২০ জুলাই শাহবাগে আন্দোলনের সময় পুলিশের টিয়ার শেলে সিদ্দিকুর রহমান চোখে আঘাত পান। প্রথমে সিদ্দিকুরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চক্ষুবিজ্ঞান ইন্সটিটিউটে স্থানান্তর করা হয়।

সেখান থেকে ২৭ জুলাই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চেন্নাইয়ে পাঠানো হয়। এখন তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন।

আরআই