মেসেজগুলো পড়ে আমার চোখে পানি চলে এসেছে: অপূর্ব

বিনোদন প্রতিবেদক, সময়ের কণ্ঠস্বর- মিজানুর রহমান আরিয়ান। মূলত রোমান্টিক পরিচালক হিসেবেই চেনে সবাই। সেই আরিয়ান এবার একটা টেলিফিল্ম বানালেন। ঈদের চারদিন পর প্রচার হলো। প্রচার হতেই চারদিকে আলোচনা। নাম ‘বড়ছেলে’।

এক মধ্যবিত্ত পরিবারের বড় ছেলের ত্যাগ ও জীবন সংগ্রামের গল্প নিয়েই নির্মিত হয়েছে ‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্ম। এতে বড় ছেলের চরিত্রে অভিনয় করেছেন টিভি পর্দার সফল অভিনেতা অপূর্ব। গতানুগতিক প্রেমিক চরিত্রে তাকে সবসময় দেখা গেলেও এই টেলিফিল্মে তার অভিনয়ে মুগ্ধ হয়েছেন সবাই। তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন। তার অভিনয়ও ছিলো প্রশংসনীয়। এছাড়া টেলিফিল্মটির অন্যান্য চরিত্রগুলোও পরিপূর্ণভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন নির্মাতা আরিয়ান। বাস্তবধর্মী গল্প আর সবার অনবদ্য অভিনয় দর্শককে কাঁদিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দর্শকদের প্রতিক্রিয়া দেখে সহজেই বোঝা যায়, এই ‘বড় ছেলে’ কতটা সফল। অধিকাংশ দর্শকই বলছেন, তারা এই টেলিফিল্ম দেখে কান্না আটকে রাখতে পারেননি। এছাড়া টেলিফিল্মটির ইউটিউব লিংকের কমেন্ট ঘরে তাকালেও প্রমাণ মেলে। প্রায় সবগুলো মন্তব্যই এসেছে প্রশংসার। অনেকেই বলছেন ‘বড় ছেলে’ এবারের ঈদের সেরা টেলিফিল্ম।

শুধু নাটকটিই নয়, একই সঙ্গে প্রশংসা পাচ্ছে টেলিফিল্মে ব্যবহৃত গানটি। সোমেশ্বর অলির লেখা ও সাজিদ সরকারের সুর-সঙ্গীতায়োজনে মিফতাহ জামানের গাওয়া ‘তাই তোমার খেয়াল’ গানটি অন্যতম আকর্ষণ বলে মনে করছেন অনেকেই। এর কথা সুর ও গায়কী ছুঁয়েছে শ্রোতাদের মন। এছাড়া টেলিফিল্মজুড়ে মিফতাহর কণ্ঠের আবহ দর্শক হৃদয়ে কাঁপন ধরিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অপূর্ব বলেন, ‘আপনারা নাটক দেখে চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি। আর আমার চোখে পানি চলে এসেছে আপনাদের ভালোবাসায় সিক্ত ম্যাসেজগুলো পড়ে, লিখলেন অপূর্ব। তিনি বলেন, আমি চেষ্টা করব আরো ভালো কাজ উপহার দেয়ার। যাদের হৃদয় স্পর্শ করতে পারিনি, আমি চেষ্টা চালিয়ে যাব।’

আমি ধন্যবাদ দিতে চাই ‘বড় ছেলে’র টিমের সবাইকে। বিশেষ করে আরিয়ানকে। আরিয়ানের রুচিবোধ, লেখা আর সুন্দর কল্পনাশক্তি আমাকে মুগ্ধ করে সবসময়ই।

আরআই