নাফ নদী থেকে আরও ৭ রোহিঙ্গা নারী ও শিশুর লাশ উদ্ধার

কক্সবাজার প্রতিনিধি- কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফ নদী থেকে তিনটি শিশু ও দুই নারীসহ ৭ রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁদের কারো কারো শরীরে কোপানোর দাগ রয়েছে।

ফাইল ফটো

আজ বুধবার সকালে ও গতকাল মঙ্গলবার রাতে শাহপরীর দ্বীপ, জালিয়াপাড়া ও নাজিপাড়া এলাকা থেকে এসব লাশ উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ থানার ওসি মো. মাইন উদ্দিন খান জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ লাশগুলো উদ্ধার করে।

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল রাতে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে কয়েকটি নৌকা কক্সবাজারের শাহপরীর দ্বীপের দিকে আসার সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। রাতে নাফ নদীর মোহনা শাহপরীর দ্বীপের কাছ থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে জালিয়াপাড়া থেকে দুই পুরুষ ও এক শিশুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সর্বশেষ আজ সকালে নাজিপাড়ায় আরো দুই নারীর লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে লাশগুলো উদ্ধার করে।

এদিকে স্থানীয় একাধিক বাসিন্দা সকালে জানিয়েছেন, যে দুই পুরুষের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, তাঁদের গায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর চিহ্ন রয়েছে। মনে হচ্ছে, জখম হওয়ার পর তাঁরা নৌকায় করে নাফ নদী পাড়ি দিচ্ছিলেন। তার মধ্যেই দুর্ঘটনার শিকার হন।

উল্লেখ্য, ২৫ আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে দলে দলে রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করছে। স্থল ও জলসীমান্ত পথে হাজার হাজার রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ অব্যাহত রয়েছে।

টেকনাফ সীমান্তের অপরদিকে মিয়ানমার এলাকা থেকে নৌকায় পালিয়ে আসার সময় নাফ নদীতে একাধিক নৌকাডুবির ঘটনাও ঘটেছে। এতে এখন পর্যন্ত ৯৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই বেশি।

আরআই