শিক্ষকরা কোচিং বাণিজ্য করতে পারবেন না, নোট-গাইড বই চল‌বে না: শিক্ষামন্ত্রী

জিএস‌কে শান্ত, স্টাফ ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষকরা কোচিং বাণিজ্য করতে পারবেন না। কোন নোট বা গাইড বই চলবে না। এগুলো বন্ধে আইন তৈরি করা হচ্ছে। এর সাথে জড়িত কেউ ছাড় পাবে না।

বুধবার (১৩ সে‌প্টেম্বর) দুপুরে খুলনা সরকারি মহিলা কলেজ মিলনায়তনে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চল আয়োজিত বিভাগের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষা বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে শিক্ষার গুণগত মান ও নৈতিকতার উন্নয়ন এবং জঙ্গিবাদ বিরোধী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তি‌নি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সরকার ইতোমধ্যে দেশে জঙ্গিবাদ বিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে।

কিছু কিছু শিক্ষার্থী কানমন্ত্রে আকৃষ্ট হয়ে জঙ্গিবা‌দে জড়িত হয়েছে উলেখ করে মন্ত্রী বলেন, আর যাতে দেশে জঙ্গিবাদ না আসতে পারে এ জন্য শিক্ষক-অভিভাবকসহ সকলকে সর্তক থাকতে হবে ও এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষকরা যদি নৈতিকতা-আদর্শ-শিক্ষা থেকে বিচ্যুত হয় তাহলে দেশের সর্বনাশ। কেবল অর্থই নয়, মান-মর্যাদাই হচ্ছে শিক্ষকদের বড় সম্পদ। শিক্ষার্থীদের জ্ঞানের পাশাপাশি ভালো মানুষ হিসেবে তৈরি করতে হবে। নৈতিক শিক্ষা দিতে হবে। শ্রেণিকক্ষে তাদের আরও বেশি পাঠদান করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সরকার পরিকল্পনা নিয়েই দেশকে এগিয়ে নিচ্ছে আধুনিক যুগের অন্যতম হাতিয়ার হ‌চ্ছে প্রযুক্তি। এজন্য ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে ঘোষণা করা হয়েছে ভিশন-২০২১। ডিজিটাল ও উন্নত বাংলাদেশ বাস্তবায়নে যারা নেতৃত্ব দিবে সেসব নতুন প্রজন্মকে বিশ্বমানের শিক্ষা দিতে হবে। শিক্ষার্থীদের পরিচালনায় শিক্ষকরা হচ্ছেন মূল নিয়ামক শক্তি। এ জন্য আমরা শিক্ষকদের মর্যাদা বাড়াতে চাই। সম্পদের সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও শিক্ষকদের বেতন বাড়ানো হয়েছে। দেশের উন্নয়ন হলে সকলেরই সুযোগ সুবিধা বাড়বে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস হচ্ছে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ। আর এর মহানায়ক হচ্ছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭৫-এ তাকে হত্যা করা হয়েছিলো যাতে আমরা স্বাধীনতার মূল লক্ষ্যে পৌছাঁতে না পারি। এজন্যই আমরা দীর্ঘদিন পিছিয়ে ছিলাম। বর্তমানে মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে, দেশে এখন কেউই না খেয়ে ও খালি গায়ে থাকেন না, এটাই উন্নয়ন।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন, কারিগরী ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর এবং খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আবদুস সামাদ।

এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনা অঞ্চলের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষার পরিচালক টি এম জাকির হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান।

আরআই